প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বগুড়ায় নির্বাচনী সংঘর্ষে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ আহত ৭

বগুড়া প্রতিনিধি: [২] আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বগুড়ার ধুনটে নির্বাচনী প্রচারকালে এলাঙ্গী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে হামলা পালটা হামলা, ভাংচুর ও সংঘষের্র ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের ৭ জন আহত হয়েছে। শুক্রবার দিবাগত রাত ৮টায় এলাঙ্গী বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় উভয়পক্ষ থানায় পল্টাপাল্টি অভিযোগ দিয়েছে।

[৩] অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আগামী ২৮ নভেম্বর ধুনট উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এলাঙ্গী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছেন ৭জন। আতাউর রহমান পলাশ ও জিএম সম্রাট এলাঙ্গী ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী। শুক্রবার সন্ধ্যার পর এলাঙ্গী বাজার এলাকায় নির্বাচনী প্রচারকালে এই দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মাধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সন্ধ্যার পর এলাঙ্গী বাজারে আসাদুজ্জামান লিপ্টনের ঔষধের দোকানে বসে নির্বাচনী আলোপ কালে জিএম সম্রাট ও তার সমর্থকরা হামলা চালিয়ে লিপ্টনের ঔষধের দোকান ও দুইটি মোটর সাইকেল ভাংচুর করেছে। এ সময় তাদের হামলায় তিনি ও তার তিন কর্মী আহত হয়েছে।

[৪] সংঘর্ষে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আতাউর রহমান পলাশ ও তার সমর্থক আসাদুজ্জামান লিপ্টন, মনির হোসেন, মেহেদী হাসান বাপ্পি আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত মেহেদী হাসান বাপ্পি বাদি হয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী জিএম সম্রাট সহ ৬জনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

[৫] অপরদিকে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী জিএম সম্রাট ও তার সমর্থক ফজর আলী, বেলাল হোসেন আহত হয়েছে। এতে আহত নাজমুল হোসেন বাদি চেয়ারম্যান প্রার্থী আতাউর রহমান পলাশ সহ ৯জনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

[৬] হামলার বিষয়টি অস্বীকার করে জিএম সম্রাট জানান, সন্ধ্যার পর লিপ্টনের দোকানের সামনে দিয়ে প্রচারকালে আতাউর রহমান পলাশ ও তার লোকজন হামলা চালিয়ে তাকে ও তার দুই সমর্থককে আহত করেছে।

[৭] ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। উভয় পক্ষের অভিযোগ দিয়েছে। তদন্ত সাপের্ক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত