প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মনির খান: ছেড়ে যেতে অনেকেই পারে, কিন্তু আগলে রাখতে কজন পারে?

মনির খান: প্রত্যেকটা মানুষ তার প্রিয় মানুষটির কাছে ভীষণ দুর্বল থাকে। মানুষটাকে নিয়ে হাজারটা স্বপ্ন,স্মৃতি যেন তার আবেগ, বিবেকটাকে সব সময় নাড়া দিয়ে যায়। চাইলেও সেই মানুষটার কথা এক মুহূর্তের জন্যও ভুলে থাকা যায় না, সম্ভব হয় না। জীবনের সমস্ত বাধা-বিপক্তিকে পেছনে ফেলে রেখে বারবার ছুটে যেতে ইচ্ছা করে প্রিয় মানুষটিকে একপলক দেখার আশায়, বলে দিতে ইচ্ছা করে তিল তিল করে জমানো হাজারটা কথা। এটুকু বিশ্বাস থাকে,পৃথিবীর কেউ তাকে না বুঝলেও সেই। মানুষটি অন্তত তাকে বুঝবে,মনোযোগ সহকারে তার না বলা কথাগুলো শুনবে। মুখে অসংখ্যবার ছেড়ে যাবো, ছেড়ে যাবো, বলা মানুষটিও চায় অপর পক্ষের মানুষটাকে তাকে বুঝুক,যত্ন করে আগলে রাখুক। চোখের কোণে জল এনে বলে দিক,‘তোমাকে ছাড়া বাঁচতে পারবোনা আমি’। সব সময় ছেড়ে যাবার হুমকিটা আসলে ছেড়ে যাওয়ার জন্য বলে না কেউ। এটা বোঝাতে চায়, তাকে আরও শক্ত করে ধরে রাখো, চোখে চোখে রাখো,খুব করে শাসন করো,নিয়ম করে যত্ন নাও।

সত্যিকারের ভালোবাসা গুলো কখনো হারায় না। কেউ কাউকে ছেড়েও যায় না। জীবনের সমস্ত ঝড় তুফানকে সামলে নিয়ে সম্পর্কটার প্রতি দায়িত্ব বাড়ায়,সম্পর্কটা টিকিয়ে রাখার দৃঢ় প্রতিজ্ঞা করে। হ্যাঁ দুটি মানুষ একসঙ্গে থাকলে অনেক সময় অনেক কারণে মনোমালিন্য হতেই পারে, কথার কম বেশি হতেই পারে, রাগারাগি, মান-অভিমান, হতেই পারে, তাই বলে সেই সত্যিকারের ভালোবাসা গুলোর ভাঙন সৃষ্টি হয় না। মাঝখানে বাঁধার দেয়াল তৈরি হয় না। সারাদিন অভিমান শেষে আবার শেষবেলায় গিয়ে দুজনে মিলেমিশে একাকার হয়ে যায়। হুম সেটাই প্রকৃত ভালোবাসা, সেই হলো প্রকৃত জীবন সঙ্গী। ছেড়ে যাওয়াটা কোনো সমাধান নয়, বরং শত শত প্রতিকূলতার সঙ্গে লড়াই করে মানুষটাকে চিরদিন আগলে রাখার নাম ভালোবাসা,ভালো রাখা। ছেড়ে যেতে অনেকেই পারে, কিন্তু আগলে রাখতে কজন পারে? যারা আগলে রাখে তারাই সুখি,তারাই মানুষ। তারাই হাসে অনবরত। ভালো থাকুক প্রতিটি সম্পর্ক। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত