প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খিলগাঁওয়ে গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগে স্বামী-শাশুড়ি গ্রেপ্তার

সুজন কৈরী : রাজধানীর খিলগাঁওয়ে নাসরিন আক্তার বৃষ্টি নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী নুরুজ্জামান ওরফে নুরুল ইসলাম ও শাশুড়ি কমলা বেগমকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত নাসরিন পিরোজপুর সদরের উত্তরভাইজুড়া গ্রামের মশিউর রহমানের মেয়ে। খিলগাঁওয়ের মেরাদিয়া মধ্যপাড়া এলাকার একটি ভাড়া বাড়িতে স্বামীর সঙ্গে থাকতেন।

নাসরিনের বাবা মশিউর রহমান বলেন, বৃহস্পতিবার বিকেল চারটার দিকে নাসরিন ফোন করে তাকে বাড়ি নিয়ে যেতে বলেন। অসাবধানতাবশত মাটির ঢাকনা ভেঙে ফেলায় তার শাশুড়ি তাকে অনেক গালমন্দ করেন। এরপর রাত আটটার দিকে ফোন করে মেয়ের মৃত্যুর খবর পান তিনি। শুক্রবার ফজরের নামাজের সময় ঢাকা মেডিক কলেজে মর্গে গিয়ে মেয়ের লাশ দেখতে পান মশিউর রহমান।

নাসরিনের বাবা আরও বলেন, করোনা শুরু হওয়ার আগে নুরুজ্জামানের সঙ্গে বৃষ্টি বিয়ে হয়। ওরা একে অপরকে পছন্দ করত। করোনা শুরু হওয়ায় আমরা গ্রামের বাড়ি চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেই। তখন দ্রুতই ওদের বিয়ে দেই। নুরুজ্জামান পড়াশোনা করত পাশাপাশি টিউশনিও করত। এভাবেই ভালোই চলছিল ওদের দিন। বিয়ের সময় নুরুজ্জামানকে দেড় লাখ টাকা দেওয়া হয়। কিন্তু নুরুজ্জামানের পরিবারও আরও দুই লাখ টাকা দাবি করছিল। ওই টাকা দিতে না পারায় তারা প্রায়ই নাসরিনকে নির্যাতন করতেন। বৃহস্পতিবার বিকেলে ঝগড়ার এক পর্যায়ে তারা নাসরিনকে গলায় কোন কিছু পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে মেরে ফেলেছে।

নাসরিনের মৃত্যুর পর ও তার মা কমলা বেগম পালিয়ে যেতে চাইলে এলাকাবাসী তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

খিলগাঁও থানা পুলিশের ওসি ফারুকুল আলম বলেন, শুক্রবার বৃষ্টির বাবা থানায় নিহতের স্বামী ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। এরপর অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত