শিরোনাম
◈ শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আজ ◈ লোহার খুঁটি পড়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ ◈ হজ করতে পাসপোর্টের মেয়াদ থাকতে হবে ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত ◈ পি কে হালদারকে এখনই দেশে আনা সম্ভব না, জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ রপ্তানির সুযোগ রেখে নিরাপদ খাদ্য আইন সংশোধন প্রস্তাব ◈ বয়স্ক সাংবাদিকদের স্থায়ী ভাতা দেয়ার কথা ভাবছে সরকার: কল্যাণ ট্রাস্ট এমডি ◈ আমাদের হাতে মাত্র এক দিনের পেট্রল আছে ◈ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতের চলচ্চিত্র নির্মাতা গৌতম ঘোষের সাক্ষাৎ ◈ প্রধানমন্ত্রী ও তার পরিবারের নামে প্রতারণার চেষ্টা করলে ফোন করে জানানোর পরামর্শ ◈ ড্রোনে রূপ নিচ্ছে রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধ

প্রকাশিত : ১৯ মে, ২০২১, ০২:০০ দুপুর
আপডেট : ১৯ মে, ২০২১, ০২:০৫ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

[১] রেস্টুরেন্টের আড়ালে সিসা বার চালাতেন ওমর সানি-মৌসুমীর ছেলে, ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

মাসুদ আলম : [২] মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর গুলশানে মন্টানা লাউঞ্জ নামে একটি সিসা বারে অভিযান চালিয়ে ১১ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। সিসা বারটি তারকা দম্পতি ওমর সানি ও আরিফা জামান মৌসুমীর ছেলে ফারদিন এহসান স্বাধীনের। তবে স্বাধীনকে মামলার আসামি করা হয়নি। সিসা বারটি বন্ধ করে দেওয়া হয়।

[৩] গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- দীন ইসলাম, হৃদয়, নাসির উদ্দিন, সৌরভ কস্তা, ওমর ফারুক, রিজওয়ান রোজারিও, মো. মাসুম, ইলিয়াস, জুলহাস, বিজয় ও শিমুল কস্তা।

[৪] ওমর সানি বলেন, সিসা সিগারেটের চেয়েও কম ক্ষতিকর। এছাড়া গুলশান-বনানীতে এমন আরও ৪০টি সিসা বার রয়েছে। তাহলে সিসা বার কেন অবৈধ হবে। মন্টানা লাউঞ্জ আসলে একটি খাবারের রেস্টুরেন্ট। এর মালিক আমার ছেলে এবং তার আর দুই বন্ধু। খাবারের পাশাপাশি এখানে সিসা খাওয়ার ব্যবস্থা ছিল। আমরা কোনো বেআইনি কাজ করেনি। আমরা দেশের আইন অনুযায়ী চলতে চাই। আমরা খুব সুন্দরভাবেই আছি এবং বাকি জীবনটাও খুব সুন্দরভাবে থাকব। অবৈধ কোনো কিছু আমরা করিনি এবং করবও না। এখানে আমাদের আসল ব্যবসা খাবারের। সাপ্লিমেন্টারী হিসেবে সিসা বারটি ছিল।

[৫] তিনি বলেন, গুলশান বনানীতে যদি আরও ১০টি সিসা লাউঞ্জ থাকে তাহলে আমরটা কেনো থাকবে না। আরও ১০-১৫ বছর আগে থেকে গুলশান বনানীতে সিসা লাউঞ্জ আছে। সিসা লাউঞ্জের ১০০ শতাংশ কোনো কাগজপত্র বাংলাদেশ সরকার দেয় না। আর সিগারেট অবৈধ না হলে সিসা লাউঞ্জ কেন অবৈধ হবে?

[৬] গুলশান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম বলেন, আসামিদের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়। ঘটনাস্থলে স্বাধীন না থাকায় তাকে আসামি করা হয়নি। সিসা ও সিসা সেবন করার বিভিন্ন জিনিসপত্রও জব্দ করা হয়েছে। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে সিসা সেবন নিষিদ্ধ। গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা করা হয়।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়