প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অমি রহমান পিয়াল:  আরও প্রচুর নারীর সঙ্গে মামুনুলের অন্তরঙ্গ কথাবার্তা ফাঁস হয়েছে

অমি রহমান পিয়াল:  শাহজাদা সেলিম আদতে নারীলোলুপ ছিলেন। হিন্দি সিনেমা তারে অমর করছে আনারকলির সুবাদে। বাবা সম্রাট আকবরের হেরেমের এক নর্তকীর প্রেমে বুদ হইয়া বাবার বিরুদ্ধেই বিদ্রোহ করছিলেন। সেই অমর প্রেমের পরিসমাপ্তি ঘটে আনারকলির জীবন্ত সমাধিতে। তো সেলিম এরপর কী করলেন? না রোমিওর মতো আত্মহত্যা করেননি, মজনুর মতো পাগলও হইয়া যাননি। তিনি ভিন্ন নারীতে মনোযোগ দিলেন। নারীর নাম মেহরুন্নিসা। আকবরের উজিরের মেয়ে, একইসঙ্গে প্রবল বিক্রমশালী যোদ্ধা শের আফগানের স্ত্রী। তিন বছর ঘুরলেন সেলিম, এর মধ্যে আকবর মারা গেছেন, তিনি সম্রাট হইছেন, নাম নিছেন জাহাঙ্গীর। শের আফগান তখন বিহারের গভর্নর। তার বিরুদ্ধে বিদ্রোহের অভিযোগ আনলেন জাহাঙ্গীর। অন্য ভার্সনে বিদ্রোহ দমনে পাঠাইলেন। গুপ্তহত্যা কিংবা যেভাবেই হোক শের আফগান মারা গেলেন।

জাহাঙ্গীরের হেরেমে ঠাই হইলো মেহরুন্নিসার। জাহাঙ্গীরের ২০তম স্ত্রী। পরবর্তী সময়ে প্রবল প্রতাপশালী নুরজাহান। মোগল সাম্রাজ্য শাসন করছেন। তো ইতিহাসে এমন পরস্ত্রীকাতরতার নজির ভুরি ভুরি। ছলে বলে কৌশলে অন্যের স্ত্রীকে পটানো কখনও আলোচ্য না যদি না ঘটনার নায়ক আলোচিত কোনো ব্যক্তি হন। সাড়া ফেলে দেওয়া মানবিক বিয়ের পেছনের গল্পটা অত্যন্ত অমানবিক।

আমরা ১৭ বছরের এক সদ্য তরুণের মুখে শুনলাম তার মায়ের সিডিউস হওয়ার কাহিনি। কতোটা কষ্ট নিয়ে তারে কথাগুলা লাইভে বলতে হইছে। তারা পর্দা পর্দা বলতে মুখে ফেনা তুলে ফেলে। রক্ষণশীল একটা পরিবারের পর্দা উন্মোচন করতেও তাদের সময় লাগে না। তখন ধর্ম অদৃশ্য হইয়া যায়। অন্ধভক্ত, যে জানহাজির করে সেবা করছে তার বউরে পটাইলা। ডিভোর্স করাইলা। এনজিওর টাকায় ফ্লাট কিন্যা সেখানে রাখলা। বিদেশ থিকা কোটি কোটি টাকা আনলা ইসলামের সেবার কথা বইলা। সেই টাকায় নিজের লাম্পট্য উদযাপনে ব্যয় করলা। ধরা পইড়া বললা বিয়ে করছো, অথচ প্রথম স্ত্রী জানে না। বাংলাদেশের আইন মাইনা তার অনুমতি নেয়া হইলো না।

রক্ষিতার মতো যারে রাখলা, তারে ম্যাসেজ পার্লারে কাজ করতে হয় বাচ্চাদের খরচ পাঠাইতে। মেয়ের বাবা মাও জানে না তুমি তার স্বামী। রিসোর্টেও স্ত্রীর পরিচয় দিলা না। রেজিস্ট্রিতে নাম লেখাইলা প্রথম বউর। যাতে খোজ খবর নিলে বলতে পারো স্ত্রীর সঙ্গে আসছিলা। তোমার মুরীদরা বলতেছে সব ফেইক, লাইভ ফেইক ভিডিও ফেইক, কলরেকর্ড ফেইক। কিন্তু তোমার স্বীকারোক্তিই বলে দেয় সব সত্য। তোমার উপর অনেক বদদোয়া। জেনা করছো কিনা সেটা আল্লাহ জানবেন। কিন্তু একটা সংসার ভাঙার বদদোয়া। দুইটা মা হারা শিশুর বদদোয়া। তোমার প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে অন্যায় প্রতারণার বদদোয়া। এবং সতেরোটা লাশের বদদোয়া। যাদের রক্ত মাড়ায়া তুমি রিসোর্টে ফূর্তি করতে গেছো। আর তুমি সেসব ধামাচাপা দিতে মিথ্যার পর মিথ্যা বলতেছো। আল্লাহর গজবরেই অস্বীকার করতেছো! আবার বলতেছো সেটা অন্য মানুষের ওপর পড়বে!

ইসলাম, আল্লাহর পাক কালামরে আর কতো অপবিত্র করবা মিয়া? আরও প্রচুর নারীর সঙ্গে তোমার অন্তরঙ্গ কথাবার্তা ফাঁস হইছে। তাদের সংসারের কী অবস্থা? তাদের কয়টা ফ্লাটে রাখছো? সেগুলাও কী এতিমের জন্য আনা টাকার হক মাইরা কেনা? আল্লাহ তোমারে সৎ পথে আনুন, তার আগে তোমার সত্যিকার চেহারাটা মানুষের কাছে উন্মোচিত করুন…#মানবিক বিবাহ। #রয়েল রিসোর্ট। #রুম ৫০১। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত