প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সামরিক জান্তার কাছে রোহিঙ্গা ইস্যুটি গুরুত্বপূর্ণ নয়, এক বছর তারা ঘর গোছাতেই ব্যস্ত থাকবে: অভিমত বিশ্লেষকদের

আব্দুল্লাহ মামুন: [২] এয়ার কমোডর (অব.) ইসফাক ইলাহি চৌধুরী বলেন, মিয়ানমার সরকার তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়গুলো নিয়ে ব্যস্ত থাকবে। ফলে রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন নিয়ে আমাদের যে আলোচনা চলছিলো সেটি আপাতত ঝুলে থাকবে বলেই মনে হচ্ছে। রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে আমাদের অপেক্ষা করতে হবে, যতোদিন না তাদের ঘর গোছানো শেষ হবে।

[৩] মেজর জেনারেল (অব.) মোহাম্মদ আলী শিকদার বলেন, পশ্চিমা বিশ^ থেকে কিছুু নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে মিয়ানমারের ওপর। তবে আমেরিকা বা পশ্চিমা বিশ্বগুলো সর্বাত্মকভাবে তা করবে না। মিয়ানমারে যে পরিস্থিতি চলছে এটি কিছুদনের মধ্যে শিথিল হবে এবং সামরিক শাসকরাই সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী হয়ে রাষ্ট্র পরিচালনা চালিয়ে যাবে।

[৪] তিনি বলেন, জরুরি অবস্থার এক বছর পর তারা পরস্থিতি মূল্যায়ন করে দেখবে, কী কৌশল নেওয়া যায় বা আবার বেসামরিক কোনো পুতুল সরকারকে ক্ষমতায় বসানো যায় কিনা। এক্ষেত্রে চীন ও রাশিয়া অত্যন্ত শক্তিশালীভাবে মিয়ানমারের সঙ্গে আছে এবং ভবিষ্যতে আরও শক্তিশালীভাবে থাকবে। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত