প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[২] বিএনপি-জামাতের ইতিহাস মিথ্যায় ভরা, সংসদে সরকারি দলের এমপিরা

মনিরুল ইসলাম: [২] সংসদে মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাব নিয়ে সাধারণ আলোচনাকালে অংশ নিয়ে সরকারি ও বিরোধী দলের সদস্যরা এসব কথা বলেন।

[৩] স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে এই আলোচনায় অংশ নেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী মো. ফরহাদ হোসেন, তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান, আওয়ামী লীগের সুবিদ আলী ভুইয়া, দবিরুল ইসলাম, মনোয়ার হোসেন চৌধুরী, আব্দুস সালাম মুর্শেদী এবং বিরোধী দল জাতীয় পার্টির মো. ফখরুল ইমাম, পীর ফজলুর রহমান ও অধ্যক্ষ রওশন আরা মান্নান।

[৪] আলোচনায় অংশ নিয়ে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী মো. ফরহাদ হোসেন বলেন, দ্রুত অগ্রসরমান বাংলাদেশ নির্ধারিত সময়ের আগেই উন্নত দেশে পৌছে যাবে। সেই লক্ষ্য নিয়েই কাজ করছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। প্রধানমন্ত্রীর সরাসরি তত্ত্বাবধানে জনবান্ধন জনপ্রশাসন গড়ে তোলা সম্ভব হয়েছে। প্রথমবারের মতো দীর্ঘ মেয়াদী উন্নয়র পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। শতবর্ষী ব-দ্বীপ পরিকল্পনাও নেওয়া হয়েছে। এসকল পরিকল্পনায় তৃণমূল জনগোষ্ঠিকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। টেকসই উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশ দ্রুতই উন্নয়নের মহাসড়কে পৌঁছে যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

[৫] করোনা ভ্যাকসিন নিয়ে সরকারের সমালোচনার জবাবে তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান বলেন, অনেকেই বলেছিলেন, সরকার ভ্যাকসিন আনতে পারবে না। এখন ভ্যাকসিন আসার পর তারা বলছেন, এগুলো কী ভালো? আসলে সরকারের কোন ভাল কাজই তাদের চোখে পড়ে না।

[৬] তিনি বলেন, বাংলাদেশ দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলেছে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে গৃহহীনরা আশ্রয় খুঁজে পাচ্ছে। উন্নয়ন-অগ্রগতিতে দেশ দৃষ্টান্ত স্থাপন করছে। এই কারণে সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র-চক্রান্ত চলছে। এই ষড়যন্ত্র-চক্রান্তের বিরুদ্ধে স্বোচ্চার থাকার জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

[৭] বিদেশে টাকা পাচার ও লুটপাটকারীদের পরিচয় জাতীয় সংসদে তুলে ধরার দাবি জানান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মো. ফখরুল ইমাম। তিনি বলেন, লুটেরা কারা? এরা কী দলে? সরকারে না আশপাশে? এদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নিয়েছেন জানতে চাই। তিনি বলেন, দেশে ধনীদের আয় যেভাবে বাড়ছে দরিদ্রদের আয় সেভাবে বাড়ছে না। ফলে আয় ব্যবধান তৈরি হচ্ছে। দেশে বর্তমানে ৩ কোটি ৭০ লাখ মানুষ দরিদ্র। প্রায় দুই কোটি অতিদরিদ্র রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

[৮] আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য এ বি তাজুল ইসলাম বিএনপির রাজনীতির সমালোচনা করে বলেন, আমাদের সিনিয়র সংসদ সদস্য সেলিম ভাই একান্ত আলাপে বলেছিলেন, জিয়াকে হত্যা করলে না কেন। তোমার পক্ষে এটা সম্ভব ছিল। আমি ছিলাম তখন ক্যাপ্টেন। তাই আমার পক্ষে এটা সম্ভব ছিল না।

[৯]তিনি আরো বলেন, জিয়াউর রহমান কত হাজার মুক্তিযোদ্ধকে হত্যা করেছে, আমাদের দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীর কত অফিসারকে কোর্ট মার্শাল দিয়ে হত্যা করেছে, অপরারেশন ক্লিনহার্ট করে কত আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীকে হত্যা ও নির্বাচন ঠেকানোর নামে মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে তার হিসাব নেই।

[১০] দেশের অর্থনৈতিক খাতের ‘অব্যবস্থাপনার’ সমালোচনা করে বিরোধী দল জাতীয় পার্টির আরকে সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী অনেক কাজ করছেন। কিন্তু আামদের অর্থনৈতিক খাত পিতা-মাতার বখে যাওয়া সন্তানের মতো। অবাধ্য সন্তানের মতো। সরল পথে আনা যাচ্ছে না। হাইকোর্টও বলছে, বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তা ঠগবাজ, প্রতারকদের আশ্রয় দিচ্ছেন। এক মামলার পূর্ণাঙ্গ রায়ে এই পর্যবেক্ষণ এসেছে। তিনি আরো বলেন, বিদেশে টাকা পাচার হচ্ছে। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, সরকারি কর্মকর্তারা বিদেশে টাকা পাচার করছেন। এটা দেখা দরকার।

[১১] সরকারী দলের আরেক সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান বলেন, বিএনপি-জামায়াতের ইতিহাসই মিথ্যায় ভরা। পৌর নির্বাচনসহ বিভিন্ন নির্বাচনে দেখছি, জনগণ তাদের ভোট দিতে চায় না। এ কারণে বিএনপি উন্মাদের মত আচরণ করছে।

[১২] তিনি আরো বলেন, টিকা কে আগে নেবেন সেটা নিয়ে প্রশ্ন তোলার চেষ্টা করছে বিএনপি। বলা হচ্ছে, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ নাকি সবার আগে টিকা নিয়েছেন, এটি একটি ভুল তথ্য। সংসদে ভুল তথ্য না দেওয়ার অনুরোধ করেন তিনি।

[১৩] জাতীয় পার্টির রওশন আরা মান্নান বলেন, পিকে হালদারের বান্ধবী না হতে পেরে এখন অনেকে আফসোস করছে। কারণ তার বন্ধবীরা এতো টাকা পেয়েছে।

[১৪] তিনি বলেন, তাকে বিদেশ থেকে ধরে এনে কঠোর শাস্তি দেওয়া হোক। না হলে ভবিষ্যতে উদাহরণ হয়ে থাকবে। অনেকে টাকা পয়সা নিয়ে বিদেশে পালিয়ে যাবে। এ ধরণের আরো কত পিকে হালদার আছে, দুদককে তা খুঁজে বের করতে হবে।

[১৫] সরকারী দলের আব্দুস সালাম মুর্শেদী বলেন, পদ্মা সেতু চালু শেষ হলে দক্ষিণাঞ্চলের ২৯ জেলার অর্থনৈতিক অবস্থা আমুল বদলে যাবে। মংলা বন্দর আরো গতিশীল হবে। তাই এখন ভোলা থেকে খুলনায় গ্যাস সরবরাহের পদক্ষেপ নিতে হবে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত