প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ডিসির ওপর ক্ষুব্ধ সেতুমন্ত্রীর ভাই, সড়কে শুয়ে জানালেন প্রতিবাদ

অহিদ মুুকুল: [২] নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী আবদুল কাদের মির্জার অনুসারীরা রোববার (৩ জানুয়ারি) দুপুরে সড়ক অবরোধ করে জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।

[৩] এ সময় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই পৌর মেয়র প্রার্থী আবদুল কাদের মির্জা বিক্ষোভকারীদের মাঝে শুয়ে পড়লে সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। বিকেল ৩টা পর্যন্ত সমাবেশের কারণে যান চলাচল বন্ধ থাকে।

[৪] পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রোববার সকাল ১০টার দিকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের উপস্থিতিতে আগামী ১৬ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য বসুরহাট পৌর নির্বাচনের নির্বাচনী আচরণবিধি সংক্রান্ত সভা চলছিল।

[৫] এ সময় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আবদুল কাদের মির্জা তার বক্তব্যে নোয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী, ফেনীর সংসদ সদস্য নিজাম হাজারী ও সন্দ্বীপরে সংসদ সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করেন। এছাড়াও দলীয় বিভিন্ন বিষয়ে বক্তব্য দিতে থাকেন। এক পর্যায়ে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম তাকে নির্বাচন ও আচরণবিধি মেনে কথা বলার জন্যে অনুরোধ জানান।

[৬] এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে মেয়র প্রার্থী আবদুল কাদের মির্জা সভাস্থল ত্যাগ করেন। তার অনুসারীরা জেলা প্রশাসকের বিরুদ্ধে নানা আপত্তিকর স্লোগান দিতে থাকেন। পরে বিক্ষোভকারীরা বসুরহাট জিরো পয়েন্টে বঙ্গবন্ধু চত্বরে জড়ো হয়।

[৭] এ সময় আবদুল কাদের মির্জা ঘটনাস্থলে গিয়ে শুয়ে পড়লে তার অনুসারীরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ ও সমাবেশ করতে থাকে। সমাবেশে কোম্পানিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খিজির হায়াৎ খান, সাধারণ সম্পাদক নুরনবী চৌধুরী ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আজম পাশা রুমেলসহ স্থানীয় নেতারা বক্তব্য দেন।

[৮] জেলা প্রশাসক মো. খোরশেদ আলম খান বলেন, মেয়র প্রার্থী আবদুল কাদের মির্জা নির্বাচন নিয়ে সভায় দীর্ঘক্ষণ নানা বিষয়ে বক্তব্য দেন। এক পর্যায়ে তাকে নির্বাচন ও আচরণবিধি নিয়ে কথা বলার জন্য অনুরোধ জানালে তিনি উত্তেজিত হয়ে সভাস্থল ত্যাগ করেন। এরপর তার উপস্থিতিতে অনুসারীরা প্রথমে উপজেলা পরিষদের সামনে এবং পরে প্রধান সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে পুলিশ সুপার মো, আলমগীর হোসেন বলেন, বিষয়টি তাদের জন্য বিব্রতকর। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

[৯] এ বিষয়ে আবদুল কাদের মির্জার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি। সম্পাদনা: সাদেক আলী

সর্বাধিক পঠিত