প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

লক্ষ্যমাত্রা পেরিয়ে আমন, কৃষকের মুখে তৃপ্তির হাসি

ডেস্ক রিপোর্ট: খুলনা জেলায় চলতি রোপা, আমন মৌসুমে লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় ৩শ’ হেক্টর জমিতে বেশি চাষ হয়েছে। গত বছরের তুলনায় এ বছর ফলনও বেশি হয়েছে। এতে দেখা দিয়েছে কৃষকের মুখে তৃপ্তির হাসি।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্যমতে, খুলনা জেলায় চলতি বছর রোপা, আমন আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৯২ হাজার ৫২০ হেক্টর। এরমধ্যে অর্জিত হয়েছে ৯২ হাজার ৮২০ হেক্টর। লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় ৩শ’ হেক্টর বেশি আবাদ হয়েছে।

রূপসা উপজেলার নৈহাটি ইউনিয়নের নিকলাপুর গ্রামের চাষি আরিফুল ইসলাম বলেন, আমনের ফলন ভালো হয়েছে। উপজেলা কৃষি দফতর ও সংশ্লিষ্ট ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সার্বক্ষণিক পরামর্শ দিয়ে সহযোগিতা করেছেন। এবার ধানের দাম গত বছরের তুলনায় অনেক বেশি। ফলে তিনি লাভ বেশি পাবেন বলে আশা করছেন।

বটিয়াঘাটা উপজেলার কিসমত ফুলতলা এলাকার কৃষক হাফিজ মলঙ্গী জানান, তিনি এ বছর চার বিঘা জমিতে আমনের আবাদ করেন। বিঘাপ্রতি তার খরচ হয়েছে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার টাকা। বিঘাপ্রতি তিনি প্রায় ১৮ মণ করে ধান পাবেন বলে ধারণা করছেন।

রূপসা উপজেলার বাগমারা গ্রামের কৃষক মো. খোরশেদ আলম বলেন, এ বছর আমনের ফলন ভালো হয়েছে। একই উপজেলার ইলাইপুর গ্রামের কৃষক মো. ইব্রাহিম বলেন, আমনের আবাদ ভালো হয়েছে।

রূপসা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুহাম্মদ ফরিদুজ্জামান বলেন, উপজেলায় এ বছর ৩ হাজার ৮৯০ হেক্টর জমিতে আমনের আবাদ হয়েছে। গত বারের তুলনায় এ বছর ফলন বেশি হয়েছে।

ডুমুরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মুহাম্মদ মোছাদ্দেক হোসেন বলেন, ডুমুরিয়ায় এ বছর ১৫ হাজার ৫২৫ হেক্টর জমিতে আমনের আবাদ করা হয়। ফলন ভালো হয়েছে।

দাকোপ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মেহেদী হাসান খান বলেন, এ বছর আমন আবাদে লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১৮ হাজার ৮২৫ হেক্টর। আবাদে হয়েছে ১৯ হাজার ৩২০ হেক্টর। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় ফলন বেশি হয়েছে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর খুলনা’র উপ-পরিচালক মো. হাফিজুর রহমান বলেন, এ বছর আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় জেলায় আমন আবাদে বাম্পার ফলন হয়েছে।ডেইলি বাংলাদেশ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত