প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

থ্রি-পিসের কারণে নারী সংসারে ভাঙন, ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার বাদিয়াজান এলাকায় গ্রাম্য সালিসে পরকীয়ার অভিযোগে এক নারীর সংসার ভাঙা ও ব্যবসায়ী রতনকে জরিমানা করার ঘটনা দুই ইউপি মেম্বারসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। শুক্রবার বাসাইল থানায় মামলা করেন ভুক্তভোগী ব্যবাসায়ীর বাবা মোশারফ হোসেন।

আসামিরা হলেন- কাউলজানী ইউপি মেম্বার ইসমাইল হোসেন (ছরোয়ার), মনিরুজ্জামান (মনির), বাদিয়াজান গ্রামের শফিক, আজিবর, মিন্টু মিয়া, সেকান্দার, হানিফ।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, বাসাইলের ফুলকি ইউপির বালিয়া গ্রামের ব্যবসায়ী রতন রোববার রাতে একই উপজেলার বাদিয়াজান উত্তর পাড়ার এক নারীর কাছে পাওনা টাকা আনতে যান। এ সময় ওই নারীর দেবর, শ্বশুরবাড়ির লোকজন ও স্থানীয় কয়েকজন তাকে ঘরের ভেতর আটকে রেখে মারধর করে। পরদিন সালিস ডেকে স্বামীর সঙ্গে ওই নারীর বিচ্ছেদ ও রতনকে দুই লাখ ৮০ হাজার টাকা জরিমানা করে। জরিমানার টাকা নিতে রতনের বাবা মোশারফ হোসেনের কাছ থেকে জোড় করে সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নেয়া হয়। এরপর থেকেই দুই ইউপি মেম্বার টাকার জন্য রতনের বাবাকে চাপ দিতে থাকে।

এ ব্যাপারে কাউলজানী ২ নম্বর ইউপি মেম্বার ইসমাইল হোসেন (ছরোয়ার) বলেন, আমি কারো কাছে টাকা চাইনি। আমি পরিস্থিতির স্বীকার।

কাউলজানী ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হবি চৌধুরী বলেন, সালিসের নামে টাকা নেয়ার কোনো নিয়ম নেই। এছাড়া তরিঘরি করে ওই গৃহবধূকে তালাক দিতে বাধ্য করা আইন সম্মত হয়নি।

বাসাইল থানার ওসি হারুনুর রশিদ বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। শিগগিরই আসামিদের গ্রেফতার করা হবে।

সর্বাধিক পঠিত