প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] রাজতন্ত্রের সংস্কার ও সামরিক শাসনের প্রতিবাদে থাইল্যান্ডে বিক্ষোভ অব্যাহত

লিহান লিমা: [২] মঙ্গলবার রাতে ব্যাংককের গণতন্ত্রের ভাস্কর্যের সামনে রাজতন্ত্র বিরোধী বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। ১৯৭৩ সালে এই দিনে একনায়কতান্ত্রিক সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে থাইল্যান্ডে গণ-অভ্যুত্থান হয়েছিলো। সিএনএন/আলজাজিরা/ডেইলি মেইল

[৩]পুলিশ জানায়, অনুমতি ব্যতীত সমাবেশ এবং আইন লঙ্ঘন করায় বিক্ষোভের সময় ২১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রতিবাদকারীরা রাস্তা আটকে দিয়ে ব্যারিকেড তৈরি করে এবং রাজার গাড়ি বহর যাওয়ার সময় প্রতিবাদী তিন আঙ্গুলের চিহ্ন দেখিয়ে রাজতন্ত্রবিরোধী স্লোগান দেয়। থাইল্যান্ডে করোনা ভাইরাস ধরা পড়ার পর এই প্রথম জার্মানি থেকে ফেরেন থাই রাজা।

[৪]বিক্ষোভকারীরা বুধবার প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের সামনে র‌্যালি করার পরিকল্পনা করেছে। এদিন রাজতন্ত্রপন্থীরাও পাল্টা বিক্ষোভে নামতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

[৫]বিশ্লেষকরা মধ্য-সেপ্টেম্বর থেকে চলা এই আন্দোলনকে ‘ঐতিহাসিক মুহুর্তের সূচনা’ বলে মন্তব্য করছেন। বিক্ষোভকারীরা নতুন সংবিধান তৈরি, পার্লামেন্ট ভেঙ্গে দেয়া, প্রধানমন্ত্রী প্রায়ুথ চান ও-চার পদত্যাগ এবং সমালোচনাকারীদের দমন করার সরকারী নীতির শেষ চাইছেন। অনেক বিক্ষোভকারী গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাপনায় সুষ্ঠু সাংবিধানিক রাজতান্ত্রিক ব্যবস্থার কথা বলছেন।

[৬]রাজতন্ত্রের সংস্কারের দাবী করা বিক্ষোভকারীরা কারাবন্দী হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছেন। থাইল্যান্ডে রাজপরিবার ও রাজার সমালোচনা নিষিদ্ধ এবং কঠোর শাস্তির বিধান রয়েছে। সেদেশে রাজাকে ইশ্বরের প্রতিনিধি গণ্য করা হয়। তবে শিক্ষার্থী সব কুসংস্কার ভেঙ্গে রাজপ্রাসাদের সামনে অবস্থান নিয়ে স্লোগান দিচ্ছেন, ‘এই দেশ জনগণের, রাজার নয়।’

[৭]১৯৩২ সালে থাইল্যান্ডে রাজতন্ত্র নিষিদ্ধ হলেও দেশটির রাজনীতিতে রাজার প্রত্যক্ষ প্রভাব রয়েছে। প্রয়াত রাজা ভূমিবল দেশটির রাজনৈতিক সংকটের সময় শক্তিশালী ভূমিকা পালন করা সহ দেশটির সাধারণ জনগণের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করেছেন। কিন্তু ২০১৯ সালে অভিষিক্ত হওয়া তার পুত্র নতুন রাজা মহা ভাজিরালংকন নৈতিকতা ধরে রাখতে পারেন নি, বছরের অর্ধেক সময় রাজসঙ্গীদের সঙ্গে জার্মানির বিলাসবহুল হোটেলে সময় ব্যয় করেন। তবে নিজস্ব সামরিক ইউনিট তৈরিসহ নিজের ব্যক্তিগত সম্পদ বৃদ্ধি ও রাজকীয় বাজেট বৃদ্ধি করে রাজার ক্ষমতাকে আরো সুসংহত করেছেন তিনি।

[৮]রাজনৈতিক উত্থানপতন ও রক্তক্ষয়ী বিক্ষোভ থাইল্যান্ডের রাজপথে যেনো মিশে রয়েছে। ১৯৩২ সালের পর এ পর্যন্ত ১৩টি সফল সামরিক অভ্যুত্থান হয়েছে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও সাবেক সেনাপ্রধান প্রায়ুথ চান-ওচা ২০১৪ সালে ক্ষমতা দখল করেছিলেন।

সর্বাধিক পঠিত