প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

অনির্বাণ আরিফ: বঙ্গবন্ধুকে আওয়ামী লীগ নিজেদের সম্পত্তি করে নিতে পেরেছে অন্য রাজনৈতিক দলগুলোর নির্বুদ্ধিতায়!

অনির্বাণ আরিফ: বঙ্গবন্ধুকে দিয়ে আওয়ামী লীগ বিজনেস করে। বঙ্গবন্ধুর নাম ভাঙিয়ে আওয়ামী লীগ রাজনীতি করে। বঙ্গবন্ধু হলো আওয়ামী লীগের রাজনীতির পুঁজি। এই কথাগুলো একটাও মিথ্যা নয় বরং সত্য। কিন্তু-আজ আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বিজন্সে করতে পারতো না, রাজনীতি করার সুযোগ ছিলো না, পুঁজি বানিয়ে রাজনৈতিক লাভ নিতে গিয়ে বাঁধার মুখে পড়তো, যদি আওয়ামী লীগের বাইরে থাকা প্রগতিশীল দলগুলো বঙ্গবন্ধুকে ধারণ করতো। বিএনপি ক্ষমতায় এসে বঙ্গবন্ধুর নাম না মুছে দিতো। সুশীল সমাজের একাংশ বঙ্গবন্ধুর নামে মিথ্যা প্রোপাগাণ্ডা না ছড়াতো। ‘আমরাও বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসি কিন্তু আওয়ামী লীগ বঙ্গবন্ধুকে নিজেদের সম্পত্তি বানিয়ে নিয়েছে।’ – এ ধরনের আঁতলামিপনা কথাবার্তাগুলো যারা বলেন তাদের যখন আমরা বলি, যখন পঁচিশ বছর বঙ্গবন্ধু তার গড়ে তোলা দেশে ব্যান ছিলেন, তখন আপনারা কী করেছিলেন?
কিংবা মোশতাক-জিয়া যখন ইনডেমনিটি দিয়ে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার বন্ধ করে দিয়েছিলো, তখন আপনারা কোথায় ছিলেন? অথবা কেন শেখ হাসিনাকেই বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার করতে হলো? তখন এরা মুখে চুন পড়া জোকের মতো মুখটা কুঁচকে রেখে চুপসে যায়। রাজনীতি এক বিষয়, নীতি এক বিষয়, আদর্শ এক বিষয়। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে রাজনীতি করা সহজ, বঙ্গবন্ধুর নীতি কপচানো সহজ, কিন্তু বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করা কঠিন। সুশীলদের কথার পিঠে আপনি যখন চাবুক চালাবেন তখন তারা বলবেÑ আপনি বাকশালী অথচ সে সুশীল দুই মিনিট আগেও বলেছিলো সে বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসে। বঙ্গবন্ধুকে আওয়ামী লীগ নিজেদের সম্পত্তি করে নিতে পেরেছে অন্য রাজনৈতিক দলগুলোর নির্বুদ্ধিতার কারণে। বঙ্গবন্ধুকে আওয়ামী ঘেরাটোপ থেকে বের করে নিতে পারলে তা যেমন রাজনীতির জন্য ভালো হতো তেমনি বাংলাদেশের জন্য ও কল্যাণকর হতো। ফেসবুক থেকে

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত