প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কামরুল হাসান মামুন: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধঃপতনের আওয়াজ পাচ্ছি

কামরুল হাসান মামুন: প্রচন্ড মেধাবী একজন শিক্ষক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে চলে গেল। আমার মতে বর্তমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন একজন শিক্ষক ছিলেন যিনি চেষ্টা করলে পৃথিবীর সেরা কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হতে পারতেন। আমেরিকায় পিএইচডি, বিশ্বসেরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পোস্ট-ডক, ছোটবেলা থেকে ডাকসাইটে ছাত্র হিসাবে পরিচিতি এইসব কজনার আছে? এইরকম একজন শিক্ষক স্বেচ্ছায় দেশে ফিরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ দিয়েছিল। কি ভাগ্য এই বিশ্ববিদ্যালয়ের!

অথচ এইরকম একজন শিক্ষক চলে গেল কেউ টেরই পেল না। তাকে ধরে রাখার জন্য নিশ্চই প্রশাসন থেকে কোনরকম চেষ্টা হয়নি। বরং হয়ত ভেবেছে আপদ গেছে। কয়েকবছর আগে একটি সত্য গল্প শুনেছিলাম। ভারতের আইআইটি শিক্ষক নিয়োগ করার জন্য তাদের সার্চ কমিটি যোগ্য প্রার্থী খুঁজছে। এর মধ্যে জেনেছে অস্ট্রেলিয়াতে একজন আছে কিন্তু সে দরখাস্ত করতে চায় না। তাই সার্চ কমিটির কয়েকজন সদস্য অস্ট্রেলিয়াতে চলে যায়। পোটেনশিয়াল পার্থীকে তারা বলে এখানে সে গবেষণার জন্য যেই যেই সুবিধা পায় ওখানে আইআইটিতে তার চেয়ে বেশি ছাড়া কম সুবিধা দিবে না। তারা তাকে কনভিন্সড করতে সমর্থ হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটা নিয়োগই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একটি ভালো যোগ যেমন অনেক আনন্দের হতে পারে একটি ভালো বিয়োগ তেমনই বেদনার হতে পারে। কিন্তু আমার ওই সহকর্মীর চলে যাওয়া নিয়ে কোথাও কোন বেদনার ছায়া দেখতে পেলাম না। শুধুই কি তাই খুব শীঘ্র আরো কয়েকজন অত্যন্ত মেধাবী শিক্ষক চলে যাওয়ার আশংকা করছি। কারণ ভালো শিক্ষকের কদর এখানে নেই। যত খারাপ তত বেশি কদর এখানে। আমি যে ত্বরান্বিত গতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধঃপতনের আওয়াজ পাচ্ছি। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত