প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[ ১] কুয়েতে গ্রেফতার স্বতন্ত্র সদস্য কুয়েতি নাগরিক হলো সদস্য পদ শূণ্য হবে: প্রধানমন্ত্রী

মনিরুল ইসলাম: [২] প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কুয়েতের নাগরিক কিনা তা দেখবো। হলে সংবিধানের বিধান অনুযায়ী তার আসন খালি (শূণ্য) করে দিবো। তিনি বলেন, কুয়েতে গ্রেফতার হওয়া সদস্য সংসদের স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য। যেখান থেকে নির্বাচিত হয়েছেন সেখানে জাতীয় পার্টির নোমানকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছিলো। জাপার নোমান নির্বাচন করেনি। সেই জায়গা থেকে স্বতন্ত্র সদস্য হয়ে জিতে এসেছে। শুধু তাই নয়। তার স্ত্রীও সংসদে স্বতন্ত্র সদস্য।

[৩] আজ জাতীয় সংসদে বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদের এক পয়েন্ট অব অর্ডারের কুয়েতে গ্রেফতার হওয়া পাপলুকে নিয়ে তার এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

[৪] হারুনুর রশীদ বলেন, আজকে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে কুয়েতে পাপলু কুয়েতের নাগরিক হিসেবে গ্রেফতার হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন। যদি তাই সত্য হয় তা হলে পাপলু নির্বাচনের সময় তথ্য গোপন করেছেন। আমাদের সংবিধান অনুযায়ী কোন বিদেশী নাগরিক আমাদের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হতে পারেন না। বা দ্বৈত নাগরিকও সদস্য হতে না। তা হলে মাননীয় স্পীকার সংবিধানের অভিভাবক হিসেবে দায়িত্ব আপনার এ বিষয়ে সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা দরকার। এই বিষয়টি আপনাকে দেখার অনুরোধ করছি।

[৫] তিনি পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে রিজেন্ট হাসপাতালের অনিয়ম ও কোভিড-১৯ পরীক্ষার ভুয়া প্রত্যায়ন পত্র প্রসঙ্গ তুলে ধরেন।
হারুনুর রশীদ বলেন, কি ভাবে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় ও অধিদপ্তর রিজেন্টকে লাইসেন্স দিলো কোভিড-১৯ পরীক্ষা করার। ৬ হাজারের অধিক লোককে ভুয়া প্রত্যায়ন পত্র দিয়ে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। আবার সরকারের কাছে টাকাও দাবি করেছে। এই ভুয়া সার্টিফিকেটের কারণের আজ চীন ও ইতালিতে বাংলাদেশের সকল ফ্লাইট বন্ধ করে দিয়েছে। তিনি প্রশ্ন করেন বলেন, এখনো রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক গ্রেফতার হয়নি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী উদ্দেশ্য করে বলেন, যেখানে মলমপার্টির লোকদের ত্রুসফায়ার করা হয় সেখানে এমন জঘন্য কাজের সাথে জড়িত তাকে কোন এখনো ধরে ত্রুসফায়ার দেয়া হচ্ছে না। তাকে ত্রুসফায়ার করা উচিত।

[৬] তিনি প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনি নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। তবে এসব দুনীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিন। কে কোন দলের তা বিবেচনায় না নিয়ে কঠোরভাবে দমন করা না হলে সামনে কোভিড-১৯ নিয়ে আরও দুর্ভোগ পোহাতে হবে।

[৭] এর জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ঠিকই বলেছেন। তবে আগে তো বলতে পারেননি। আমরা খোঁজ খবর নিয়ে অনিয়মগুলো বের করে ব্যবস্থা নিয়েছি। সরকারের পক্ষ থেকে ধরা হয়েছে। আমরা সকল অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। কেউ রেহাই পাবে না।
তিনি এসময়ই পাপলুর গ্রেফতার প্রসঙ্গে বলেন, কুয়েতি নাগরিক হিসেবে গ্রেফতার কি না তা দেখা হবো। হলো সংবিধান অনুযায়ী তার আসন খালি( শূণ্য) করে দিবো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত