প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] নারায়ণগঞ্জ বন্দরে শতবর্ষী সোনা বিবি সড়ক এখন মেয়র আইভীর বাবার নামে

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: [২] তিনি নারায়ণগঞ্জের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর বাবা। অনেক গোপনীয়তার মধ্য দিয়ে সোনা বিবি সড়কের নাম পরিবর্তন করা হয়। এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা।

[৩] জুলাই মাস থেকে হোল্ডিং ট্যাক্সের নোটিশে সড়কের নাম সোনা বিবির পরিবর্তে আলী আহাম্মদ চুনকা হিসেবে উল্লেখ করার সিদ্ধান্ত হয়। এরপর বিষয়টি জানাজানি হয়। নাম পরিবর্তন নিয়ে ক্ষোভ জানিয়েছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ এমনকি নাসিকের স্থানীয় কাউন্সিলররাও।

[৪] জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জের বন্দরের ২০ ও ২১ নং ওয়ার্ড দুটিকে যুক্ত করে আছে শত বছরের ঐতিহাসিক সোনা বিবি রোড। বাংলার সাবেক শাসক ঈশা খাঁর স্ত্রী ছিলেন সোনা বিবি। তার নামের সড়কটি মেয়র আইভীর বাবা আলী আহম্মদ চুনকার নামে নামকরণ হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে নাসিক কর্তৃপক্ষ।

[৫] সূত্র জানায়, ২০১৫ সালেই রাস্তাটির নাম পরিবর্তন করার বিষয়টি গোপনে প্রস্তাব করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পাঠান হয়। সম্প্রতি ব্যাপরটি প্রকাশ হওয়ার পর গত ১০/১২ দিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়। সেখানে অনেকে বলছেন, সাবেক পৌর পিতা আলী আহাম্মদ চুনকার নামে নারায়ণগঞ্জ শহরে একটি বিশাল রাস্তা রয়েছে। সেখানে একই ব্যক্তির নামে বন্দরে আরেকটি রাস্তার নামকরণ দৃষ্টিকটূ।

[৬] এ ব্যাপারে ২টি ওয়ার্ডের স্থানীয় বাসিন্দাসহ পুরো বন্দর এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

[৭] স্থানীয়রা বলছেন, সোনা বিবি রোডটি বন্দরে ঐহিত্যের স্মারক বহন করে। এই এলাকায় রয়েছে ঈশা খাঁর দুর্গ যেটিকে হেরিটেজ হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। সেখানে স্থানীয় জনগণের কোনো সমর্থন না নিয়ে গোপনে নাম পরিবর্তন করা হলো, আমরা কোনোভাবেই মেনে নেব না।

[৮] এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ মহানগর জাতীয় পাটির্র আহ্বায়ক ও বন্দর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানু দেশ রূপান্তরকে বলেন, সোনা বিবি রোড কারো দেওয়া নাম নয়। এটা শত বছর আগেই দেওয়া নাম। সাবেক শাসক ঈশা খাঁর স্মৃতি রয়েছে এখানে। কিন্তু কেউ যদি ইতিহাস-ঐহিত্য মুছে দিয়ে তার বাবার নামে রাস্তা করতে চায় তবে সেটা কঠোরভাবে প্রতিহত করা হবে।

[৯] বন্দর থানা আওয়ামী লীগ যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক শহিদ উল্লাহ হাসান মৃধা বলেন, সোনাকান্দাবাসী কে না জানিয়ে চুপিসারেই নাসিক কর্তৃপক্ষ ঐহিত্যবাহী সোনা বিবি রোডটিকে আলী আহম্মদ চুনকার নামে করতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠায়। এটা নাসিক মেয়রের ক্ষমতার অপব্যবহার ছাড়া আর কিছুই না। এভাবে ঐতিহাসিক স্মৃতি মুছে দিলে আগামী প্রজন্মের কাছে আমাদের ঐহিত্য ঢাকা পড়ে যাবে।

[১০] বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ২০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর গোলাম নবী মুরাদ বলেন, ২০১৫ সালে নাসিক থেকে নতুন রাস্তা নিমার্ণের পর সড়কটির নাম পরিবর্তনে নাসিকের মাসিক সভায় উত্থাপন করা হয়। সেখান থেকে নাম পরিবর্তনের প্রস্তুতি শুরু করা হয়, তখন আমি এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ছিলাম না। এই ঐহিত্যবাহী সোনা বিবি সড়কটি নাম পরিবর্তন করা হলে প্রতিবাদ জানানো হবে। আমরা আদালতে যাব।

[১১] স্থানীয় ২৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন দুলাল জানান, ইতিহাস মুছে ফেলার কাজ বিএনপি-জামায়াতের। সেখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের এমন কাজ মেনে নে না বন্দরবাসী।

[১২] তিনি বলেন, প্রয়োজনে আদালতে যাব, জনগণকে নিয়ে মাঠে নামব, কিন্তু ঐতিহাসিক এই রোডের নাম পরিবর্তন করতে দেওয়া হবে না। সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী আবুল আমিনের সঙ্গে কথা হলে তিনি গণমাধ্যমকে জানান, বিষয়টি নিয়ে এ মুহূর্তে বলতে পারবেন না। পরে নথি দেখে জানাবেন। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত