প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ব্রিটিশ লেখক জ্যাকব এফ ফিল্ডের মতে, বঙ্গবন্ধুর ভাষণ অল্প সময়ে বেশি বলার রেকর্ড ও রিদমিক

দেবদুলাল মুন্না : এ তথ্য দেন তার সম্পাদিত ‘উই শ্যাল ফাইট অন দ্য বিচেস : দ্য স্পিচেস দ্যাট ইন্সপায়ার্স হিস্টি’ নামে বিশ্বের শ্রেষ্ঠ বক্তৃতার একটি সংকলনে।

আব্রাহাম লিংকনের ‘গেটিসবার্গ এড্রেসের’ এর শব্দ সংখ্যা ২৭২, সময় ৩ মিনিটের কম। মার্টিন লুথার কিং-এর ‘আই হ্যাভ এ ড্রিম’ এর সময় ছিল ১৯ মিনিট, শব্দ সংখ্যা ১৬৬৭।বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের সময় ১৮ মিনিট, শব্দ ১১০৫ (এক হাজার একশত পাঁচ)।

এই ভাষণে রিদমিক জায়গাগুলো এমন,‘যদি হুকুম দিবার নাও পারি’ ‘ঘরে ঘরে দুর্গ গড়ে তোল’, ‘যার যা কিছু আছে তাই দিয়ে শত্রুর মোকাবিলা করো’, ‘তোমাদের আমরা ভাতে মারব, পানিতে মারব’, ‘সর্বত্র সংগ্রাম পরিষদ গড়ে তোল’, ‘আর যদি একটা গুলি চলে’ এসব।

ইতোমধ্যে ইউনেস্কোর সদর দপ্তর সংস্থাটি পরিচালক ইরিনা বোকাভা ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে দেওয়া বঙ্গবন্ধুর ওই ভাষণটি ‘মেমোরি অব দ্য ওয়ার্ল্ড’ হিসাবে ঘোষণা করেন।

সিপিবি নেতা মুজাহিদুল সেলিম বলেন, ‘কোনো কোনো ভাষণের প্রসঙ্গ মহাকাব্যে, নাটকে, উপন্যাসে, সাহিত্যে, সঙ্গীতেও স্থান করে নিয়েছে। ধরা যাক, জুলিয়াস সিজারের অনুগত রোমান সেনাপতি মার্ক অ্যান্থনির ভাষণের কথা। শেখ মুজিবের ভাষণেরও সাহিত্যমুল্য রয়েছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত