প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হ্যাপি কাউয়ের জরিপ মতে, বিশ্বে সবচেয়ে বেশি নিরামিষ রেস্তরাঁ লন্ডনে

বিশ্বজিৎ দত্ত : পৃথিবীর বৃহত্তম ভিগান এবং নিরামিষ রেস্তরাঁ গাইড ‘হ্যাপিকাউ’-এর ভিগান-শহরের তালিকার শীর্ষে জায়গা করে নিলো লন্ডন। যারা খাদ্যতালিকা থেকে প্রাণীজাত খাদ্যদ্রব্য যেমন মাছ, মাংস, ডিম এবং দুগ্ধজাত পণ্য পুরোপুরি বাদ দিয়েছেন, তাদেরই মূলত ভিগান বলা হয়। হ্যাপিকাউ-এর সাম্প্রতিক রেংকিং অনুযায়ী, গত কয়েক বছরে লন্ডনে ভিগান রেস্তরাঁর সংখ্যা উল্লেযোগ্য হারে বেড়েছে। আর তাতেই বাকিদের পিছনে ফেলে শিরোপা ছিনিয়ে নিয়েছে এই লন্ডন। ২০১৭ সালে ১০০টি ভিগান রেস্তরাঁ খোলার লক্ষ্যমাত্রায় লন্ডন সবার আগে ছিলো। হ্যাপিকাউ-এর তালিকায় প্রথম দশে থাকা অন্য শহরগুলোর মধ্যে রয়েছে নিউ ইয়র্ক, বার্লিন, লস অ্যাঞ্জেলস, টরেন্টো, ওয়ারশ, পোর্টল্যান্ড, ব্যাঙ্কক, তেল আভিভ এবং প্রাগ।

মূলত তিনটি ফ্যাক্টরের উপর নির্ভর করে রেটিং দেয় হ্যাপিকাউ। প্রথমে প্রত্যেক শহরের ভিগান-রেস্তরাঁ অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে পাঁচ মাইলের মধ্যে কতগুলি ভিগান রেস্তরাঁ রয়েছে, তা দেখা হয়। তারপর ওই একই পরিধির মধ্যে কতগুলো নিরামিষ বা নিরামিষ খাবারের ব্যবস্থা থাকা রেস্তরাঁ রয়েছে, তাও দেখা হয়। সবশেষে জনঘনত্বের নিরিখে ওই শহরে কতগুলি ভিগান রেস্তরাঁ রয়েছে, তা বিচার করে দেখা হয়। বর্তমানে লন্ডন শহরে পাঁচ মাইল পরিধির মধ্যে ১২৫টি ভিগান রেস্তরাঁ রয়েছে এবং গোটা লন্ডনে ১৫২টি সম্পূর্ণ ভিগান রেস্তরাঁ রয়েছে।

সমীক্ষার রিপোর্টে হ্যাপিকাউ দাবি করেছে, ব্রিটেনে উল্লেখযোগ্য হারে জনপ্রিয় হতে থাকা জীবনশৈলিগুলোর অন্যতম হল ভেগানিজ্ম। লন্ডনের এই ভিগান-শহরের শিরোপা পাওয়াটা তারই ফসল। রিপোর্ট বলছে, ‘ভিগান খাদ্যাভ্যাস মেনে চলা মানুষের সংখ্যা দিনদিন বাড়ছে। ভিগান সমাজের নিজস্ব সমীক্ষা বলছে, গত বছর ব্রিটেনে ৬ লক্ষ মানুষকে ভিগান হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছিলো। যা গোটা দেশের মোট জনসংখ্যার ১.১৬ শতাংশ। ওই সমীক্ষাতে আরও বলা হয়েছে, ভারতের ৩১ শতাংশ মানুষই নিরামিষ আহার করেন। সারা পৃথিবীতে যত সংখ্যক নিরামিষাশী রয়েছেন, তার চেয়ে অনেক বেশি নিরামিষাশী রয়েছেন ভারতে।

হ্যাপিকাউ জানিয়েছে, ক্লোই পরিচালিত নিউ ইয়র্কের ভিগান রেস্তরাঁ চেন ব্রিটেনে তাদের দু’টি শাখা খুলছে। একটি খোলা হয়েছে অক্সফোর্ড সার্কাসে এবং দ্বিতীয়টি কোভেন্ট গার্ডেনে। ফর্মুলা ওয়ান চ্যাম্পিয়ন লুইস হ্যামিল্টনের হাত ধরে লন্ডনের বুকে প্রথম ভিগান রেস্তারাঁ ‘নিট বার্গার’-এর আত্মপ্রকাশ ঘটেছিলো। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক পিৎজা চেন ‘পিৎজা হাট’ তাদের মেন্যুতে পুরোপুরি ভিগান খাদ্যদ্রব্য যুক্ত করেছে। অন্যদিকে, কেএফসি পরীক্ষামূলক ভাবে ‘ভেজিটেরিয়ান চিকেন’-এর মতো ভিগান মেন্যুতে আগ্রহী হয়েছে। সম্পাদনা : ভিক্টর কে. রোজারিও

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত