প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

২০৪১ সালে উন্নত বাংলাদেশ গড়তে বিশ্ববাসীর সহযোগিতা চাইলেন বাণিজ্যমন্ত্রী

স্বপ্না চক্রবর্তী : বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, সাউথ এন্ড সাউথইস্ট এশিয়ায় বাণিজ্যবৃদ্ধির প্রচুর সুযোগ রয়েছে। এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশ রপ্তানি বাণিজ্যে গুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে রয়েছে। চীন বাংলাদেশে আরো বেশি বিনিয়োগ বাড়াতে পারে। এ মুহূর্তে বাংলাদেশে বিনিয়োগের গুরুত্বপূর্ণ সেক্টরগুলো হলো জাহাজ নির্মাণ, কৃষিপণ্য প্রক্রিয়াকরণ, আইসিটি, পাটপণ্যের বহুমূখীকরণ, অবকাঠামোর উন্নয়ন এবং পর্যটন ক্ষেত্র।

বাংলাদেশ এখন বিনিয়োগকারীদের বিশেষ সুবিধা দিচ্ছে। ফলে বিশ্বের বিনিয়োগকারীদের এ দেশে বিনিয়োগের উপযুক্ত সময় এখন বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। বুধবার বাণিজ মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চীনের কুনমিংয়ে সপ্তাহব্যাপী চীন সরকার আয়োজিত ‘সাউথ এন্ড সাউথইস্ট এশিয়া কমোডিটি এক্সপো এন্ড ইনভেস্টমেন্ট ফেয়ার ২০১৯’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতার সময় এসব কথা বলেন তিনি।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এ মেলা ইস্ট এন্ড সাউথইস্ট এশিযায় বিনিয়োগের প্লাটফর্ম হতে পারে। বাংলাদেশের রপ্তানি বাণিজ্য দ্রুত এগিযে যাচ্ছে। তৈরী পোশাকের পাশাপাশি বাংলাদেশের তৈরি ঔষধও বিশ্ববাজারে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বাংলাদেশ এখন চীনসহ বিশ্বের ১৪৫টি দেশে ওষুধ বা ওষুধ জাতীয় পণ্য রপ্তানি করছে। তৈরি পোশাক রপ্তানিতে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান দ্বিতীয়। চামড়াজাত পণ্য ও আইসিটির রপ্তানিখাত দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্ববাসীর সহযোগিতা পেলে ২০৪১ সালে বাংলাদেশ হবে উন্নত দেশ।

তিনি বলেন, চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য দীর্ঘদিনের। গত অর্থবছর চীনের সাথে বাংলাদেশের বাণিজ্য হয়েছে ১২.৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের। এর মধ্যে বাংলাদেশ ১১.৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পণ্য আমদানি করেছে। গত আট বছরে এ বাণিজ্যের পরিমাণ দ্বিগুণ হয়েছে। বাংলাদেশ ফরেন ডাইরেক্ট ইনভেস্টের জন্য উপযুক্ত স্থান।

সম্পাদনা: অশোকেশ রায়

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত