প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার প্রস্তাব জানিয়ে আইসিসিকে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের চিঠি

আক্তারুজ্জামান : ভারতের পুলওয়ামাতে জঙ্গি হামলার ঘটনায় সবচেয়ে বেশি প্রভাবটা পড়েছে ভারত-পাকিস্তানের ক্রীড়াঙ্গনে। চলতি বছরের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে পাকিস্তানের মুখোমুখি হতে চাচ্ছে না ভারত। এই সিদ্ধান্ত আসছে সাবেক-বর্তমান অনেক ক্রিকেটারের বক্তব্য থেকে। তবে আইসিসির কোনও ইভেন্ট থেকে ওয়াকওভার করলে শাস্তির বিধান আছে। যার ফলে অন্য রাস্তা বেছে নিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। আইসিসির সদস্যপদ থেকেই পাকিস্তানকে বের করে দেওয়ার প্রস্তাব তুলেছে ভারত। প্রস্তাব মোতাবেক আইসিসিকে চিঠিও পাঠিয়েছে বিসিসিআই।

গত শুক্রবার রাজধানীতে বৈঠক করেন বোর্ডের শীর্ষ কর্তারা। বোর্ডের সিওএ বিনোদ রাই এবং অন্যতম সদস্য ডায়ানা এডুলজি উপস্থিত ছিলেন। বৃহস্পতিবারই দেশের সর্বোচ্চ আদালত সিওএ-র তৃতীয় সদস্য হিসেবে নিয়োগ করেছে রবি থোড়গেকে। ওই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত হয়েছিল আইসিসিকে চিঠি পাঠাবে বিসিসিআই। নজিরবিহীনভাবে আইসিসিতে চিঠি পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় বোর্ড। বোর্ডের সিইও রাহুল জোহরি অবশ্য আইসিসিকে চিঠি পাঠিয়ে দিয়েছেন।

আইসিসির কাছে পাঠানো চিঠিতে ভারতীয় বোর্ড দাবি তুলেছে, ‘পুলওয়ামার জঙ্গি হামলার মতো ঘৃণ্য ঘটনার নিন্দা করেছে আইসিসির সব সদস্য দেশ। সন্ত্রাসবাদকে যে দেশ প্রশ্রয় দিচ্ছে, তাতে আইসিসির উচিত তাদের সঙ্গে সব রকম সম্পর্ক ছিন্ন করা।’ পাকিস্তানের নাম উল্লেখ না করেও ভারতীয় বোর্ড বুঝিয়ে দিয়েছে, ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থার উচিত পাকিস্তানকে বহিষ্কার করা।
চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, ‘ভারতীয় বোর্ড আসন্ন বিশ্বকাপে ভারতীয় ক্রিকেটার এবং সমর্থকদের নিরাপত্তা নিয়েও উদ্বিগ্ন। আশা করা যায়, আইসিসি এবং ইসিবি আমাদের (ভারতের) ক্রিকেটার, আম্পায়ার এবং সমর্থকদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে।’

বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ ১৬ জুন ম্যানচেস্টারে অনুষ্ঠিত হবে। সেই প্রসঙ্গ তুলে সিওএ চেয়ারম্যান বিনোদ রাই সভার পরে বলেছিলেন, ‘১৬ জুনের এখনও অনেক দেরি। ওই ম্যাচ নিয়ে পরেও সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে। সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব আমরা।’ আইসিসিকে পাঠানো চিঠি নিয়ে তিনি বলেন, ‘জঙ্গি হামলা নিয়ে আমাদের উদ্বেগের কথা প্রকাশ করে চিঠি দিয়েছি। তাতে ক্রিকেটারদের নিরাপত্তার প্রসঙ্গ তোলা হয়েছে।’

গতকাল চিঠি দেওয়ার পর আইসিসিও ভারতের চিঠির উত্তর দিয়েছে। নিজেদের এক বার্তায় তারা বিশ্বকাপে ভারতের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আশাবাদ ব্যক্ত করেছে। তাছাড়াও আগামী ২ মার্চ বিশ্বকাপ পূর্ববর্তী বোর্ড সভায় আরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছে আইসিসি। ক্রিকইনফো, আনন্দবাজার, জিনিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত