প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মুচলেকায় মুক্ত অভিনেত্রী সানাই মাহবুব

সুজন কৈরী : ইন্টারনেটে অপেশাদার এবং অপ্রাসঙ্গিক ভিডিও ছড়ানোর অভিযোগে অভিনেত্রী সানাই মাহবুব সুপ্রভাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হেফাজতে নেয় পুলিশ। পরে মুচলেকা দিয়ে ক্ষমা চাইলে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। সেইসঙ্গে তার এমন কাজের জন্য ফেসবুক লাইভে এসেও দুঃখ প্রকাশ করেছেন তিনি।

এর আগে রোববার বিকেল ৩টার দিকে রাজধানীর মহাখালী থেকে ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ইউনিটের সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগ তাকে হেফাজতে নেয়।

ডিএমপির সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ইউনিটের এডিসি মো. নাজমুল ইসলাম জানান, নিরাপদ ইন্টারনেট ক্যাম্পেইনের অংশ হিসেবে সানাইকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনা হয়েছিল। সানাই তার ভিডিওগুলোর জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চেয়েছেন এবং আপলোড করা সেসব ভিডিও মুছে ফেলতে সম্মত হয়েছেন। তিনি মুচলেকা দিয়েছেন যে, কখনো আর এ ধরনের ভিডিও বানাবেন না বা ছড়াবেন না। সাইবার নিরাপত্তা ও অপরাধ দমন বিভাগ তার এ ধরনের কর্মকাণ্ডের ওপর নজর রাখবে। মুচলেকার বাইরে কিছু করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

এদিকে, বিকেলে নিজের ফেসবুক পেজে লাইভে এসে ক্ষমা চান সানাই। লাইভে তিনি বলেন, আমি আজকে একটি বিশেষ মেসেজ দিতে চাই। সবার উদ্দেশে বলতে চাই, আমি ক্ষমা চাচ্ছি, আমার সমালোচিত কন্টেন্টগুলো কোনো বিশেষ উদ্দেশে বা আর্থিক লাভের আশায় করিনি। আজ সাইবার ক্রাইম ইউনিটে এসে আমার বিশেষভাবে অনুধাবন হয়েছে যে, এই কন্টেন্টগুলোতে ১৮ বছরের নিচে বয়সীদের কেউ কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। অতএব এটা করা আমারা ভুল ছিল।

আমি এ দেশের একজন নাগরিক হিসেবে, দেশের সুস্থ সংস্কৃতি বিকাশে এ দেশের আইন মেনে চলে একজন ভালো শিল্পী হতে চাই। ইতোপূর্বে আমার ব্যক্তিগত বা যৌথভাবে করা বিব্রতকর ভিডিও বা ছবির জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি। আমি অবশ্যই ভবিষতে এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থাকবো। আমার নিয়ন্ত্রণে থাকা প্রোফাইল থেকে এ ধরনের কন্টেন্টগুলো মুছে ফেলবো এবং অন্যান্য কন্টেন্টগুলোর বিষয়ে সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহায়তা চাচ্ছি। আমাদের দেশের ইন্টারনেটকে নিরাপদ রাখবো। সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবো। নিরাপদ ইন্টারনেট ক্যাম্পেইন চলছে, আমি এ ক্যাম্পেইনের সঙ্গে আছি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ