প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শেষ ম্যাচে মিশরকে হারিয়ে জয়ের স্বাদ পেল সৌদি আরব

কেএম হোসাইন : সালাহকে নিয়ে বিশ্বকাপের এবারের আসরে দীর্ঘ ২৮ বছর পর ফিরে মিশর স্বপ্ন দেখছিলো ভালো কিছু করার। ইনজুরি থেকে ফিরে নিজের নামের পাশে গোল যোগ করলেন কিন্তু তাতে কোন লাভ হয়নি। তিনটি ম্যাচ হেরেই শেষ করতে হল বিশ্বকাপ মিশন। তবে শেষ ম্যাচ অন্তত ড্র করতে পারত সৌদি আরবের সাথে কিন্তু খেলার শেষ মুহূর্তের গোলে হেরে শেষ করল  ম্যাচ ।

‘এ’ গ্রুপের শেষ ম্যাচে ভোলগোগ্রাদে ২-১ গোলে মিশরকে হারিয়ে একমাত্র জয়ের স্বাদ নিয়ে দেশে ফিরছে সৌদি আরব।

টানা দুটি হারের পর প্রথম জয়ের লক্ষ্যে মুখোমুখি হয়েছিল মিশর ও সৌদি আরব। এই ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপের সবচেয়ে বয়স্ক খেলোয়াড়ের মর্যাদা পান মিশরের ৪৫ বছর বয়সী গোলরক্ষক এসাম এল হাদারি।

১২ ও ১৫ মিনিটে সেলিম আল-দাওসারি দারুণ দুটি সুযোগ নষ্ট করলে সৌদি আরব উচ্ছ্বাস করতে পারেনি। তার দুটি শট চলে যায় গোলবারের উপর দিয়ে। হঠাৎ করে ম্যাচ নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেয় মিশর। ২২ মিনিটে আব্দুল্লাহ সাইদের লম্বা ক্রস পেয়ে দুজন ডিফেন্ডারকে পেছনে ফেলে গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে বল জালে জড়ান মোহাম্মদ সালাহ। টানা দ্বিতীয় ম্যাচে গোল করে মিশরকে উল্লাসে মাতান তিনি। দুই মিনিট পর শুধু গোলরক্ষককে পেয়েও বল গোলপোস্টের বাইরে দিয়ে মারেন লিভারপুলের ফরোয়ার্ড।

৩৩ ও ৩৪ মিনিটে মিশরের মিডফিল্ডার ত্রেজিগেত দুটি সুযোগ নষ্ট করেন। গোলপোস্টের পাশ দিয়ে বল চলে যায় দুইবারই। বরং ৩৯ মিনিটে তারা সৌদি আরবকে সমতা ফেরানোর সুযোগ করে দেয়। ডিবক্সের মধ্যে আহমেদ ফাতে হ্যান্ডবল করেন। রেকর্ডের দিনে দারুণ কিছু করার সুযোগ পেয়ে সফল হন এল হাদারি। ৪১ মিনিটে ফাহাদ আল-মুওয়াল্লাদের পেনাল্টি শট চমৎকার সেভ করেন বিশ্বকাপের সবচেয়ে বয়স্ক খেলোয়াড়। কিন্তু প্রথমার্ধের ইনজুরি সময়ের পঞ্চম মিনিটে আবারও পেনাল্টি পায় সৌদি আরব। আলী গাবর বক্সের মধ্যে ফাউল করেন ‍মুওয়াল্লাদকে। ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেয়। এবার সালমান আল-ফারাজের স্পট কিক ঠেকাতে পারেননি এল হাদারি। এটি ছিল টুর্নামেন্টের ১৮তম পেনাল্টি, এতে এক আসরে সবচেয়ে বেশি পেনাল্টির রেকর্ড স্পর্শ করল রাশিয়া বিশ্বকাপ।

আল-দাওসারির ম্যাচ জেতানো গোল উদযাপনবিরতির পর মিশরের গোলরক্ষক ৬৯ মিনিটে আরেকটি দারুণ সেভ করেন। প্রতিপক্ষের হেড গোলবারের উপর দিয়ে মাঠের বাইরে পাঠান এল হাদারি। পরের মিনিটে সালাহর বাড়িয়ে দেওয়া বল বক্সের প্রান্তে পায়ে পেয়েছিলেন মোহাম্মদ এলনিনি। কিন্তু তার শট খুঁজে পায়নি জাল।

অন্তত একটি পয়েন্ট নিয়ে দেশে ফেরার স্বপ্ন দেখছিল মিশর। কিন্তু তাদের হৃদয় ভেঙে দিয়ে ইনজুরি সময়ের পঞ্চম মিনিটে গোল করে সৌদি আরব। আব্দুল্লাহ ওতায়েফের অ্যাসিস্টে লক্ষ্যভেদ করেন আল-দাওসারি।

এতে গ্রুপে তৃতীয় দল হয়ে বিশ্বকাপ শেষ করল সৌদি আরব। ১২ বছর পর বিশ্বমঞ্চে ফেরা দলটি ১১ ম্যাচ পর প্রথম জয়ের দেখা পেল।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত