প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শেয়ারবাজার উন্নয়নে একত্রে কাজ করতে বিশ্বের ৭৫ স্টক এক্সচেঞ্জের প্রতিশ্রুতি

ফয়সাল মেহেদী : শেয়ারবাজার উন্নয়নে একত্রে কাজ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে বিশ্বের ৭৫টি স্টক এক্সচেঞ্জ। জাতিসংঘের ইউনাইটেড ন্যাশনস সাসটেইন্যাবল স্টক এক্সচেঞ্জ (এসএসই) উদ্যোগে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জসহ বিশ্বের এই শেয়ারবাজারগুলো একত্রিত হয়েছে। স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে তথ্য আদান-প্রদান, শেয়ারবাজারের স্থিতিশীলতা ও স্বচ্ছতার উন্নয়নে একত্রে কাজ করতে ইতিমধ্যে প্রতিশ্রুতি পত্রে স্বাক্ষর করেছে স্টক এক্সচেঞ্জগুলো। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

এসএসই বা সাসটেইনেবল স্টক এক্সচেঞ্জের লক্ষ্য হচ্ছে বিশ্বের স্টক এক্সচেঞ্জগুলোর মধ্যে সংলাপের জন্য একটি কার্যকরী প্লাটফর্ম প্রদান করা। স্টক এক্সচেঞ্জগুলো বিনিয়োগকারী, নিয়ন্ত্রক সংস্থাসমূহ ও কোম্পানিগুলোর সঙ্গে কিভাবে একত্রে কাজ করতে পারে তা উদঘাটনের মাধ্যমে এসএসই টেকসই বিনিয়োগে উৎসাহিত করে। একইসঙ্গে কর্পোরেট স্বচ্ছতা ও পরিবেশ, সমাজ ও কর্পোরেট গভর্ণেন্সের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এতে স্টক এক্সচেঞ্জগুলো স্থিতিশীলতা সূচক ও অন্যান্য সংশ্লিষ্ট আর্থিক উপকরণ প্রদানের মাধ্যমে বিনিয়োগে উৎসাহী করতে পারে। এছাড়া তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোকে ইএসজি কার্যক্রম, প্রভাব পরিমাপ ও প্রকাশ করতে উৎসাহী করে শেয়ারবাজারে ভালো ব্যবসায়িক অনুশীলন উন্নত করতে পারে স্টক এক্সচেঞ্জগুলো।

তথ্যমতে, সাসটেইনেবল স্টক এক্সচেঞ্জ ইনিশিয়েটিভ জাতিসংঘের সমর্থিত সংস্থাসমূহ, স্টক এক্সচেঞ্জ সমূহ, বিনিয়োগকারী, কোম্পানি, নিয়ন্ত্রক সংস্থা ও সরকারের মধ্যে অংশীদারিত্বের কাজ করছে। চলতি বছরের ৭ জুন দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এসএসই উদ্যোগে যুক্ত হতে প্রতিশ্রুতি পত্রে স্বাক্ষর করেছে। এই অংশীদারিত্বের মাধ্যমে ডিএসই তার তালিকাভুক্ত কোম্পানগুলোকে পরিবেশগত সামাজিক ও কর্পোরেট গভর্ণেন্স কার্যক্রমে উৎসাহিত করবে। ডিএসই বিনিয়োগকারী কোম্পানি ও নিয়ন্ত্রক সংস্থার সঙ্গে সংলাপের মাধ্যমে দীর্ঘমেয়াদী টেকসই বিনিয়োগ এবং তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর উন্নয়ন নিশ্চিত করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

এ বিষয়ে স্টক এক্সচেঞ্জটির ব্যবস্থাপনা পরিচারক কে. এ. এম. মাজেদুর রহমান বলেন, এই সহযোগিতা বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ও দক্ষ ইএসজি অর্থাৎ এনভাইরনমেন্টাল, সোস্যাল ও করপোরেট গভর্ণেন্স প্রতিবেদক আসার সুযোগ তৈরি করবে। এতে শেয়ারবাজারের স্টেকহোল্ডারগণ উপকৃত হবেন।

তিনি আরও বলেন, মোট বাজার লেনদেনের ৯৫% শেয়ার লেনদেন করা বাংলাদেশের নেতৃস্থানীয় স্টক এক্সচেঞ্জ হিসাবে ডিএসই তার তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর ইএসজি ইস্যুতে স্বচ্ছতা ও কার্যক্রমের ব্যাপারে সচেতন। এই বছর থেকে আমরা তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর দীর্ঘমেয়াদী টেকসই বিনিয়োগ এবং পরিবেশগত, সামাজিক ও কর্পোরেট গভর্ণেন্স বিষয়ে প্রকাশনা ও কর্মক্ষমতা উন্নত করতে যৌথ কর্মশালা আয়োজন শুরু করেছি।

মাজেদুর রহমান বলেন, মে মাসে প্রায় ৩০টি তালিকাভুক্ত কোম্পানি নিয়ে আয়োজিত প্রথম কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে টেকসই প্রতিবেদন ও কর্পোরেট স্বচ্ছতার বিষয়ে আগ্রহ দেখেছি। ডিএসইর বেশকিছু তালিকাভুক্ত কোম্পানি স্থিতিশীলতার বিষয়ে প্রতিবেদন জমা দিচ্ছে। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, ডিএসই ও এসএসইর এই সহযোগিতা বাংলাদেশে টেকসই বিনিয়োগ ও প্রতিবেদন উন্নয়নে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত