প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

তাদের দাবি সহানুভূতির সাথে বিবেচনা করা হোক

আরিফ জেবতিক : এটা অবশ্যম্ভাবী। সারা বাংলাদেশে যে পরিমাণ মাদ্রাসা খোলা হয়েছে, সেই তুলনায় এই মাদ্রাসাগুলো চলার কোনো আর্থিক ব্যবস্থাপনা রাখা হয়নি। তথাকথিত সওয়াবের নামে একটা বাড়ি নিয়ে সেখানে মাদ্রাসা বসানো হয়েছে। শিক্ষকরা স্থায়ীভাবে কিভাবে জীবন ধারণ করবেন, মাদ্রাসা কিভাবে পরিচালিত হবে সে সম্বন্ধে ভাবা হয়নি।

সম্পূর্ণ অব্যবস্থাপনায় এই শূন্যতাটা তৈরি হয়েছে। সরকারের এদিকে মনোযোগ দরকার। সরকারের উচিত হবে এটাকে মনিটরিংয়ের আওতায় নিয়ে আসা। এই যে দরিদ্র মাদ্রাসা শিক্ষক, যারা বেতন পাচ্ছেন না বা সরকারি বেতন দাবি করছেন, তাদের বিষয়টা সহানুভূতির সাথে বিবেচনা করা হোক।

পরিচিতি : সিনিয়র সাংবাদিক
মতামত গ্রহণ : সানিম আহমেদ
সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত