শিরোনাম
◈ বিএনপিতে শুদ্ধি অভিযান শুরু, সরকারের সঙ্গে আঁতাতের অভিযোগে ফেঁসে যাচ্ছেন শতাধিক নেতা  ◈ তুরস্কে কন্ট্রাক্ট ফার্মিংয়ে বাংলাদেশি কৃষিবিদ ও কৃষক নিয়োগের প্রস্তাব  ◈ ফুটপাত থে‌কে জ্বলন্ত চুলা ও সিলিন্ডার সরা‌লো পু‌লিশ, আটক ৮  ◈ প্রধানমন্ত্রীকে বড়পীর আব্দুল কাদের জিলানীর (র.) মাজার জিয়ারতের আমন্ত্রণ ◈ রাজধানীজুড়ে রেস্তোরাঁয় পুলিশি অভিযান, আটক ৩৫ ◈ প্রবাসী আয়ে চমক, ৮ মাসে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স ফেব্রুয়ারিতে ◈ রমজানে সৌদি আরবে মাইক ব্যবহার ও সম্প্রচার সীমিত করে ৯ দফা নির্দেশনা ◈ পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ ◈ বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ড হাইকোর্টে রিট দায়ের ◈ গাজায় মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ বন্ধে ঐক্যবদ্ধ উদ্যোগের আহবান বাংলাদেশের

প্রকাশিত : ০১ ডিসেম্বর, ২০২৩, ১২:৪৩ রাত
আপডেট : ০১ ডিসেম্বর, ২০২৩, ০২:৪৮ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

এবি ব্যাংকের ১৩৪ কোটি আত্মসাৎ, ১৫ জনের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

মাজহারুল মিচেল: [২] জালিয়াতির মাধ্যমে ঋণের নামে ১৩৪ কোটি ২১ লাখ ৪৯ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে এবি ব্যাংকের সাবেক ১০ কর্মকর্তাসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে পৃথক তিনটি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

[৩] দুদকের উপপরিচালক (জনসংযোগ) আকতারুল ইসলাম জানিয়েছেন, আসামিরা হলেন- এবি ব্যাংকের সাবেক এসইভিপি শওকত আজিজ, সাবেক ভিপি জগলুল শাহ, সাবেক এসপিও মাঈন উদ্দীন আহমেদ, ব্যাংকটির গুলশান শাখার সাবেক ম্যানেজার মো. ছাইফুল ইসলাম খান, সাবেক এসইভিপি আজাদ হোসাইন, সাবেক এসএভিপি মোহাম্মদ আবদুল মইজ, সাবেক এসপিও আশরাফি সুলতানা মালা, সাবেক পিও এস এম ইরশাদুল আবছার চৌধুরী, সাবেক ইভিপি জহির উদ্দিন মোহাম্মদ বাবর খান এবং সাবেক পিও আমিনুল ইসলাম।

[৪] এছাড়া ঋণগ্রহীতা তিনটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ফোর স্টার ট্রেড সার্ভিসেসের প্রোপাইটর এ এন এম তাইবুর রশিদ, ইনফরমেশন সলিউশন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ শাপীর খসরু এবং মেসার্স এনার্জি ট্রেডার্সের প্রোপাইটর তাহজিব-ই-তারন্নুমকে মামলায় আসামি করা হয়েছে।

[৫] এক মামলায় ২০১৫ সালে ফোর স্টার ট্রেড সার্ভিসেসের নামে স্থাবর সম্পদ সহায়ক জামানত ছাড়া আইন কানুন অমান্য করে এবি ব্যাংকের গুলশান শাখা থেকে ঋণ নিয়ে সুদাসলে ৬২ কোটি ৪ লাখ ৮৫ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মামলাটি করা হয়। এতে স্টার ট্রেড সার্ভিসেসের স্বত্বাধিকারী তাইবুর রশিদ ছাড়াও এবি ব্যাংকের তৎকালীন চার কর্মকর্তাকে আসামি করা হয়।

[৬] আরেক মামলায় ২০১৩ সালে এবি ব্যাংকের প্রিন্সিপাল শাখা থেকে একইভাবে জামানত ছাড়া ইনফরমেশন সলিউশন লিমিটেডের নামে ঋণ নিয়ে সুদাসলে ৫৬ কোটি ৫২ লাখ ৩৮ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়। এতে ইনফরমেশন সলিউশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ শাপীর খসরু ছাড়াও এবি ব্যাংকের তৎকালীন আরও চার কর্মকর্তাকে আসামি করা হয়েছে।

[৭] অপরদিকে, ২০১৪ সালে আইন অমান্য করে একইভাবে ব্যাংকটির ধানমন্ডি শাখা থেকে মেসার্স এনার্জি ট্রেডার্সের নামে ১৫ কোটি ৬৪ লাখ ৬৬ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে প্রতিষ্ঠানটির স্বত্বাধিকারী তাহজিব-ই-তারন্নুম ও তৎকালীন ব্যাংকটির দুই কর্মকর্তাকে আসামি করা হয়েছে।

[৮] দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ এ কমিশনের উপপরিচালক মোহাম্মদ সিরাজুল হক বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার (৩০ নভেম্বর) মামলাগুলো দায়ের করেন। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়