শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ০৩:৫০ দুপুর
আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর, ২০২২, ০৩:৫০ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশি পণ্যের অধিকতর শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকারের আহ্বান

শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকারের আহ্বান

কূটনৈতিক প্রতিবেদক: যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশি পণ্যের অধিকতর শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকারের আহ্বান জানানো হয়েছে। 

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) ওয়াশিংটন ডিসিতে অনুষ্ঠিত যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কো-অপারেশন ফোরাম এগ্রিমেন্টের ষষ্ঠ সভা বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এ আহবান জানানো হয়।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ এবং যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক অ্যাসিস্ট্যান্ট ট্রেড রিপ্রেজেনটেটিভ ক্রিস্টোফার উইলসন যথাক্রমে বাংলাদেশ ও মার্কিন প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন।

বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলে অন্যান্যদের মধ্যে শ্রম সচিব মো. এহছানে এলাহী, কৃষি সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম, যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরান এবং পররাষ্ট্র ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং আইসিটি বিভাগের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়ে বলা হয়, সভার শুরুতে ডেপুটি ইউএসটিআর সারাহ বিয়ানচি বলেন, বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক অগ্রগতি এই টিকফা সভাকে যেকোনও সময়ের চেয়ে বেশি প্রাসঙ্গিক করে তুলেছে।

বৈঠকে প্রধান আলোচ্য বিষয়গুলোর মধ্যে ছিল যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি পণ্যের অগ্রাধিকারমূলক প্রবেশাধিকার, যুক্তরাষ্ট্র থেকে আমদানি করা তুলা দিয়ে তৈরি পোশাকের উৎপাদন বণ্টন, বাণিজ্য ও বিনিয়োগ উন্নয়ন, মেধাস্বত্ব অধিকার, গুণগত সার্টিফিকেশন অবকাঠামোর জন্য প্রযুক্তিগত সহযোগিতা, শ্রম বিষয় এবং আইডিএফসি অর্থায়ন।

বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে তৈরি পোশাকের অগ্রাধিকারমূলক প্রবেশাধিকারের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। বাণিজ্যসচিব উল্লেখ করেন, অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশ এখন যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক রফতানিতে সর্বোচ্চ শুল্ক দেয় যা মার্কিন বাজারে বাংলাদেশি পণ্যের প্রতিযোগিতা সক্ষমতা ব্যাপকভাবে হ্রাস করছে।

উভয় পক্ষই আমদানিকৃত মার্কিন তুলার বিষবাষ্পীকরণ ব্যাপারে আলোচনা করে। বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল যুক্তরাষ্ট্র থেকে আমদানি করা তুলা থেকে তৈরি বাংলাদেশি পোশাকের রফতানির ওপর ‘শূন্য’ শুল্ক প্রস্তাব করে। মার্কিন প্রতিনিধি দলের প্রধান ক্রিস্টোফার উইলসন এই বিষয়ে আলোচনা অব্যাহত রাখার ব্যাপারে সম্মত হন।

মার্কিন প্রতিনিধি দল বাংলাদেশে মার্কিন বিনিয়োগের জন্য মুনাফা প্রত্যার্পন সহজ করার অনুরোধ জানান। এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল ঢাকায় ফিরে বিষয়টি পরীক্ষা-নিরীক্ষার আশ্বাস দেন।

উভয় পক্ষই প্রস্তাবিত ডেটা সুরক্ষা আইন, কৃষিতে বায়োটেকনোলজি, ইউএসএফডিএ-তে বাংলাদেশি ওষুধের নিবন্ধন সহজিকরণ, যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাংলাদেশে ‘ট্রি নাট’ রফতানির ওপর শুল্ক হ্রাস এবং বাংলাদেশের বীজ বাজারে মার্কিন প্রবেশাধিকারের জন্য বীজ আইনের বিধানকে সহজ করার বিষয়ে আলোচনা করে।

উভয় পক্ষই ২০২৩ সালের অক্টোবরে ঢাকায় সপ্তম বৈঠক  করতে সম্মত হয়।

টিআই/এএ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়