শিরোনাম
◈ বিএনপিতে শুদ্ধি অভিযান শুরু, সরকারের সঙ্গে আঁতাতের অভিযোগে ফেঁসে যাচ্ছেন শতাধিক নেতা  ◈ তুরস্কে কন্ট্রাক্ট ফার্মিংয়ে বাংলাদেশি কৃষিবিদ ও কৃষক নিয়োগের প্রস্তাব  ◈ ফুটপাত থে‌কে জ্বলন্ত চুলা ও সিলিন্ডার সরা‌লো পু‌লিশ, আটক ৮  ◈ প্রধানমন্ত্রীকে বড়পীর আব্দুল কাদের জিলানীর (র.) মাজার জিয়ারতের আমন্ত্রণ ◈ রাজধানীজুড়ে রেস্তোরাঁয় পুলিশি অভিযান, আটক ৩৫ ◈ প্রবাসী আয়ে চমক, ৮ মাসে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স ফেব্রুয়ারিতে ◈ রমজানে সৌদি আরবে মাইক ব্যবহার ও সম্প্রচার সীমিত করে ৯ দফা নির্দেশনা ◈ পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ ◈ বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ড হাইকোর্টে রিট দায়ের ◈ গাজায় মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ বন্ধে ঐক্যবদ্ধ উদ্যোগের আহবান বাংলাদেশের

প্রকাশিত : ২৯ নভেম্বর, ২০২৩, ০৬:৪০ বিকাল
আপডেট : ৩০ নভেম্বর, ২০২৩, ১২:৩৪ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

আমাদের নতুন সময় তার অন্যতম বড় একজন শুভাকাঙ্ক্ষী ও পাঠককে হারালো

প্রয়াত সাবেক রাষ্ট্রদূত ওয়ালিউর রহমান

ভূঁইয়া আশিক রহমান: [২] একদিন মুঠোফোনে কথা হচ্ছিলো মুক্তিযোদ্ধা, সাবেক রাষ্ট্রদূত ও রাজনৈতিক ভাষ্যকার ওয়ালিউর রহমানের সঙ্গে। তিনি কার্যত আমি কিছু বলার আগেই বলতে শুরু করলেন, ‘হ্যালো, আশিক তোমার কাগজ (আমাদের নতুন সময়) মাঝখানে কে বা কারা বন্ধ করে দিয়েছিলো। তুমি ফোন করার পর থেকে কাগজটি আবারও আমি নিচ্ছি।’ বললাম, ‘থ্যাংক ইউ, থ্যাংক ইউ স্যার’। সাধারণত কোনো ইন্টারভিউ, লেখা কিংবা সাম্প্রতিক বিষয়ে মতামতের জন্য অন্য অনেকের মতো ওয়ালি স্যারের সঙ্গেও কথা হতো। মাঝখানে সম্ভবত বেশ কয়েক মাস কথা হয়নি। ফলে তাঁর মুখে অনুযোগের সুর।

[৩] এরপর তিনি বললেন, ‘সাবস্ট্যানলি বা বস্তুত অনেক অনেক উন্নতি তোমরা করেছো। মাস্ট সুপিরিয়র টু মোস্ট অব দ্য নিউজ পেপার, অন্য আর যা পত্রিকা আছে...। আমার সামনেই আছে তোমাদের কাগজটা। বেসিক্যালি এই কাগজটিই পড়ছি আজকাল। ভালো। খুব সুন্দর করছো। কনগ্রাচুলেশন।’ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করলাম। বললাম, ‘থ্যাংক ইউ স্যার’। ওয়ালি স্যার বললেন, ‘নাঈমুলকে বলো (নাঈমুল ইসলাম খান, আমাদের নতুন সময়ের ইমেরিটাস এডিটর) আমি এসব বলেছিলাম। 

[৪] বললাম, ‘স্যার, আপনি কি আমাদের নতুন সময় দেখছেন বা পড়ছেন?’ তিনি বললেন, ‘হ্যাঁ, হ্যাঁ তোমাদের তো ওইটাই পত্রিকা। বললাম, ‘স্যার, আমাদের অর্থনীতিও আছে আমাদের। ওইটাও রাইখেন’। কেন আমাদের নতুন সময় পছন্দ করেন ওয়ালি স্যার, দিলেন সেই ব্যাখ্যাও। বললেন, ‘আমি আমাদের নতুন সময়টাকে পছন্দ করি। কারণ একটি পত্রিকায় আমি যা যা চাই, তার সবই পাই এই কাগজটিতে। সকালে উঠে আমি পত্রিকায় যা আশা করছি, সেটাই পাচ্ছি। 

[৫] আমাদের নতুন সময়কে নিয়ে তার প্রশংসা যেন শেষই হচ্ছিলো না! আমাদের নতুন সময় ও দেশের অন্য মেইনস্ট্রিম পত্রিকার মধ্যে তুলনামূলক পার্থক রেখা টানেন এভাবে ‘আমার ওয়াইফ ডেইলি স্টার ও জনকণ্ঠ পড়েন। কিন্তু আমি আমাদের নতুন সময় পড়ি। আমি বাংলাদেশের রাজনীতি সম্পর্কে জানি। রাজনীতির বাইরেও যে অনেককিছু আছে, যা তোমরা প্রকাশ করো। তুলো ধরছো পাঠকের সামনে। তোমরা আসলেই খুব ভালো করছো।’ এখনো কানে বাজে আমাদের নতুন সময়কে নিয়ে ওয়ালি স্যারের সেই উচ্ছ্বাস, আস্থা, আর পিওর লাভ। নির্লোভ, নিরংহকার এই মানুষটি লিখতেন আমাদের নতুন সময় ও আমাদের অর্থনীতিতে।  

[৬] দেশব্যাপী আমাদের নতুন সময় পরিবারের অনেক অনেক শুভাকাঙ্খী, মেন্টর ও পাঠক আছেন। এর মধ্যে দু’জন উল্লেখযোগ্য শুভাকাক্সক্ষী, মেন্টর ও পাঠক আছেন। একজন ইতিহাসবিদ অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেন, অপরজন সদ্য প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়ালিউর রহমান স্যার। তাঁদের ক্রমাগত উৎসাহে আমরা অনুপ্রাণিত হই। সাহসে সামনে এগোই। সীমাবদ্ধতাকে অতিক্রম করার দুঃসাহস দেখাই। 

[৭] আমাদের নতুন সময় তার অনেক বড় একজন শুভাকাক্সক্ষী, মেন্টর ও পাঠককে হারালো। বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়ালিউর রহমানের প্রতি আমাদের নতুন সময় পরিবারের শ্রদ্ধা। ভালোবাসা। তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করছি এবং তাঁর শোকে কাতর পরিবারকে সমবেদনা জানাচ্ছি। 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়