শিরোনাম
◈ সরকারের কাছে 'আট দফা দাবি' কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ◈ শুক্রবারের সহিংসতায় ঢাকায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩২ জনে ◈ এটা অবশ্যই কারফিউ, এটা নিয়ম অনুযায়ীই হবে এবং সেটা শুট অ্যাট সাইট হবে: ওবায়দুল কাদের ◈ কারফিউ’র পরিপত্র জারি ◈ কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা কোটা আন্দোলনকারীদের ◈ ওবায়দুল কাদের কারফিউ জারি প্রসঙ্গে যা বললেন ◈ সারা দেশে কারফিউ জারি, সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত ◈ নরসিংদীর কারাগারে হামলার পর বের হয়ে গেছে কয়েকশ কয়েদি ◈ বাংলাদেশে সহিংসতা ও মৃত্যুর ঘটনায় জাতিসংঘের উদ্বেগ ◈ রাজধানীর উত্তরা, মোহাম্মদপুর, বাড্ডাসহ বিভিন্ন এলাকায় আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ

প্রকাশিত : ২৭ নভেম্বর, ২০২২, ১১:৪৭ দুপুর
আপডেট : ২৭ নভেম্বর, ২০২২, ০৩:২৩ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

রাজপথে নামুন, ভয় পুরো জাতিকে দাসে পরিণত করবে: ইমরান 

ইমরান খান

রাশিদুল ইসলাম: পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে তিনি তার দেশের স্বাধীনতা রক্ষায় লড়াই করে যাবেন। তিনি পাকিস্তানের নাগরিকদের রাজপথের লড়াইয়ে আহ্বান জানিয়ে বলেন, নিজেদের মুক্ত করুন। মৃত্যুভয়কে পেছনে ফেলে রাজনৈতিক অঙ্গনে পুরোদমে সক্রিয় হওয়ার ঘোষণাও দিয়েছেন ইমরান খান। চলতি মাসের গোড়ার দিকে পায়ে গুলিবিদ্ধ হওয়ার পর শনিবার রাওয়ালপিন্ডিতে প্রথমবারের মতো জনসভায় ভাষণ দিতে গিয়ে তিনি এ দৃঢ় প্রত্যয় জানান। এক্সপ্রেস ট্রিবিউন/ডন

ইমরান খান বলেন, আমি নিজের জীবনের চেয়ে পাকিস্তানের স্বাধীনতা নিয়ে বেশি চিন্তিত। জীবনের শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত আমি দেশের জন্য লড়াই করে যাব। 

২০২৩ সালের অক্টোবরে পাকিস্তানের পরবর্তী পার্লামেন্ট নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। কিন্তু ইমরান খান মনে করছেন, তাকে চলতি বছরের গোড়ার দিকে অন্যায়ভাবে ক্ষমতাচ্যুত করা হয়েছে এবং এই মুহূর্তে নির্বাচন হলে তিনি বিপুল জনসমর্থন নিয়ে ক্ষমতায় ফিরবেন। এ কারণে তার নেতৃত্বাধীন তেহরিকে ইনসাফ দল আগাম নির্বাচনের দাবিতে দেশব্যাপী লং মার্চ করে যাচ্ছে। 

শনিবার রাওয়ালপিন্ডির জনসভায় হাজার হাজার সমর্থকের উদ্দেশে ইমরান খান আরো বলেন, আমি মৃত্যুকে খুব কাছে থেকে দেখে এসেছি। যদি স্বাধীনভাবে বেঁচে থাকতে চান, তাহলে মৃত্যুভয় থেকে নিজেদের মুক্ত করুন, রাজপথে নামুন। ভয় পুরো জাতিকে দাসে পরিণত করবে।

সাবেক পাক প্রধানমন্ত্রী দ্রুত আগাম নির্বাচনের দাবি জানিয়ে বলেন, দেশের ৮৫ ভাগ মানুষ এখন নির্বাচন চায়। তিনি শেহবাজ সরকারের উদ্দেশ করে বলেন, নির্বাচন না দিয়ে আর কোনো উপায় নেই। পাকিস্তানের বর্তমান দুর্নীতিবাজ রাজনৈতিক ব্যবস্থার সমালোচনা করে ইমরান বলেন যারা ক্ষমতায় তাকে তারা বুঝতে পারে না দুর্নীতি গ্রহণযোগ্য নয়। দেশে অশান্তি চাইনা বলে ইসলামাবাদে আমার সমর্থকদের যেতে নিষেধ করেছি। ইমরান বলেন, আমরা এই ব্যবস্থার অংশ হব না। আমরা সমস্ত অ্যাসেম্বলি ত্যাগ করার এবং এই দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং এই বিষয়ে, আমি শীঘ্রই সংসদীয় গোষ্ঠীগুলির সাথে বৈঠক করব এবং আমার মুখ্যমন্ত্রীদের সাথে পরামর্শ করব। 

ইমরান বলেন, বিশৃঙ্খলা এড়াতে চাই বলেই গত ২৫ মে প্রতিবাদ কর্মসূচি প্রত্যাহার করেছিলাম। এখন পাকিস্তানে নির্বাচন সময়ের প্রয়োজন। আমার আত্মবিশ^াস আছে নির্বাচনে আমরা স্বাচ্ছন্দ্যে জয়লাভ করব। পুলিশের সমালোচনা করে ইমরান বলেন, বর্তমানে পাকিস্তানে সাধারণ মানুষ ন্যায়বিচার পাচ্ছে না। তাই এ অবস্থা পরিবর্তন করতে হবে। তিনি দাবি করেন তাকে হত্যার জন্যে তিনজন বন্দুকধারী জড়িত ছিল। যার মধ্যে একজন ব্যক্তি যিনি পিটিআই প্রধানকে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়েছিলেন এবং অন্য একজন যিনি কন্টেইনারের সামনে থেকে গুলি চালিয়েছিলেন - যেখানে তৃতীয় একজনকে হত্যাকারীকে চুপ থাকতে বলা হয়েছিল, তাই তারা কোন বিবরণ প্রকাশ করতে পারেনি। 

ইমরান বলেন, নির্বাচন কমিশন তার বিরুদ্ধে বর্তমান সরকারের সাথে হাত মিলিয়েছে কিন্তু জাতি একটি শক্তিশালী বার্তা পাঠিয়েছে যে তারা পিটিআইয়ের সাথে দাঁড়িয়েছে। তিনি স্বীকার করে বলেন, তার সাড়ে তিন বছরের সরকারে তিনি একটি বিষয়ে ব্যর্থ হয়েছেন তা হচ্ছে ক্ষমতাবানদের হিসাব রাখা। জাতীয় জবাবদিহি ব্যুরো এবং অন্যান্য সংস্থাগুলি সত্যই তার নিয়ন্ত্রণে ছিল না এবং অন্য কোথাও থেকে তারা আদেশ নিয়েছিল।

গত এপ্রিলে পাকিস্তানের পার্লামেন্টে এক অনাস্থা ভোটে পতন হয় ইমরানের নেতৃত্বাধীন জোট সরকারের। এর পর থেকেই তিনি আগাম নির্বাচনের দাবিতে দেশজুড়ে সভা-সমাবেশ ও লংমার্চ করছেন। গত ২৮ অক্টোবর রাজধানী ইসলামাবাদ অভিমুখে লংমার্চ শুরু করে পাকিস্তান তেহরিকে ইনসাফ (পিটিআই)। গত ৩ নভেম্বর পিটিআই চেয়ারম্যান ইমরান পাঞ্জাবের ওয়াজিরাবাদ শহরে লংমার্চ করছিলেন। এ সময় তার ওপর হামলা হয় এবং তার পায়ে গুলি লাগে। 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়