শিরোনাম
◈ মিয়ানমার সীমান্তে আগের পরিস্থিতি আর সৃষ্টি হবে না: প্রত্যাশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর  ◈ জাতীয় পার্টিতে কোনো বিভেদ নাই: রওশন এরশাদ ◈ সাংবাদিকরা চাষাবাদ করছেন কি না, দেখার দায়িত্ব পেলেন শাইখ সিরাজ ◈ কারামুক্ত বিএনপি নেতা আলালের স্বাস্থ্যের খোঁজ নিলেন মঈন খান ◈ গাজায় যুদ্ধ নয়, গণহত্যা চলছে: প্রধানমন্ত্রী ◈ শুক্রবার বিশ্বে বাতাস দূষণের তালিকায় ঢাকা ছিল সপ্তম ◈ মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনে নির্বাচন  নিয়ে কেউ প্রশ্ন করেনি: প্রধানমন্ত্রী ◈ লোহিত সাগরে হামলায় ব্যবহার করা হবে সাবমেরিন অস্ত্র: হুথি নেতা  ◈ ২১ বলে সেঞ্চুরি করে বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন আসজাদ ◈ যারা সরকার উৎখাত করতে চায়, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি তাদেরই কারসাজি: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত : ২৬ নভেম্বর, ২০২৩, ০৫:০১ বিকাল
আপডেট : ২৬ নভেম্বর, ২০২৩, ০৫:০১ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

নির্বাচন বানচালের অধিকার আইন কাউকে দেয়নি: ইসি আনিছ

এম আর আমিন, চট্টগ্রাম: [২] চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে জেলার রিটার্নিং ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়ের সভা শেষে এক প্রশ্নের জবাবে নির্বাচন কমিশনার আনিছুর রহমান আরও বলেন, নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা-না করার এখতিয়ার সবার আছে। 

[৩] রোববার (২৬ নভেম্বর) সকালে সার্কিট হাউসে নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে আয়োজিত সভা শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, এরকম কেউ করলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

[৪] কারণ নির্বাচন না করার অধিকার তাদের একক কিংবা দলীয় সিদ্ধান্ত। তাই বলে কাউকে বাধা দেওয়া যাবে না। ভোটের পরিবেশ সৃষ্টিতে যা যা দরকার সেদিকে আমরা নজর দিচ্ছি।  

[৫] নির্বাচনে দায়িত্ব পালনে নিয়োজিত কর্মকর্তাদের বিষয়ে তিনি বলেন, সুষ্ঠু অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন করতে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। ইসি আনিছ আরও বলেন, কমিশন বরাবরই বলে আসছে, আমরা সুষ্ঠু অবাধ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন করতে চাই এবং এর জন্য পরিবেশ সৃষ্টি করতে যা যা দরকার সবই করা হবে।

[৬] তিনি বলেন, আমরা নিবন্ধিত ছোট-বড় সব দলকে ভোটে অংশগ্রহণের আহ্বান জানাচ্ছি। বিএনপিকেও আমরা বার বার আহ্বান জানিয়েছি। ভোটে অংশ নেওয়া অথবা না নেওয়ার স্বাধীনতা তাদের রয়েছে। তবে কোনো দল যদি নির্বাচনে অংশ না নিয়ে সহিংসতার চেষ্টা করে তবে কঠোরভাবে দমন করা হবে।

[৭] নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ভোটারদের কেন্দ্রে উপস্থিতি করানোর দায়িত্ব কমিশনের না। তবে কোনো ভোটার ভোট প্রয়োগে বাঁধাপ্রাপ্ত হলে কমিশন বিষয়টি দেখবে। তাদের নিরাপত্তার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ভোট সুষ্ঠুভাবে সম্পন্নের জন্য রিটার্নিং অফিসার, নির্বাচন সসংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের যথাযথ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

[৮] এর আগে সভায় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার তোফায়েল ইসলাম, জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায়, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি নুরেআলম মিনা, চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ, বিজিবির রিজিওনাল কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজিদুর রহমান, চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ইউনুছ আলী, সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এনামুল হক। সম্পাদনা: তারিক আল বান্না

প্রতিনিধি/টিএবি/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়