শিরোনাম
◈ গাজায় যুদ্ধবিরতি হলেও হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে হামলা বন্ধ হবে না:ইসরায়েল ◈ চার মাসের মধ্যেই প্রাথমিকে ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগ ◈ পিলখানা হত্যাকাণ্ডের দিবসটির গুরুত্ব বাড়াতে সরকার কার্যকর উদ্যোগ নেবেন, আশা জি এম কাদেরের ◈ সরকার সংবাদপত্রের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করে না: আইনমন্ত্রী ◈ ফিলিস্তিনের বিপক্ষে অপতথ্য ছড়ানো প্রতিরোধে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে হবে: তথ্য প্রতিমন্ত্রী ◈ বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির তদন্ত প্রতিবেদন পেছাল ◈ গাজায় যুদ্ধ নয়, গণহত্যা চলছে ইসরায়েল: লুলা দা সিলভা ◈ গ্রামীণ টেলিকমসহ তার প্রতিষ্ঠানগুলোর লভ্যাংশ কাউকে দেয়া যায় না: ড. ইউনূস   ◈ মুখ খুলে মানুষ গণতন্ত্রের কথা বলতে পারছে না: ড. ইউনূস  ◈ স্বাস্থ্যসেবা বিকেন্দ্রীকরণ শুরু হয়েছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত : ২৪ মে, ২০২৩, ০৮:১৪ রাত
আপডেট : ২৪ মে, ২০২৩, ০৮:১৪ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

খেলাপি ঋণ অর্থনীতির বড় মাথাব্যথা: গভর্নর

মনজুর এ আজিজ: খেলাপি ঋণ অর্থনীতির সবচেয়ে বড় মাথাব্যথার কারণ বলে মন্তব্য করছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার। বুধবার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি) আয়োজিত ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন সামিটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন তিনি।

গভর্নর বলেন, স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনে আমরা বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছি। তার মধ্যে মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস এবং বাংলা কিউ আর অন্যতম। এর সঙ্গে এবিবির উদ্যোগে নতুন করে যুক্ত হলো ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন। আমরা আশা করি ২০২৭ সালের মধ্যে মোট লেনদেনের ৭৫ শতাংশ ডিজিটাল মাধ্যমে সম্পন্ন হবে। তবে ব্যাংকের খেলাপি ঋণ বর্তমান অর্থনীতির সবচেয়ে বড় মাথাব্যথার কারণ। পাশাপাশি কর্পোরেট সুশাসন বাড়ানোর বিকল্প নেই বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, শিগগিরই দেশে ডিজিটাল ব্যাংক চালু করা হবে। পাশাপাশি অনলাইন রিয়েল-টাইম ক্রেডিট রেটিং সিস্টেম চালু করার পরিকল্পনা করেছি। আমরা জাতীয় ঋণ কার্ড ইস্যু করার খুব কাছাকাছি অবস্থানে আছি। 

আব্দুর রউফ তালুকদার বলেন, ব্যাংকিং সেক্টরে সুশাসন এবং খেলাপি ঋণ সমস্যার সমাধানে আমাদের সাংস্কৃতিক পরিবর্তন আনতে হবে। পাশাপাশি শিক্ষার মাধ্যমে ব্যাংক ব্যবস্থায় নৈতিকতা ও প্রশিক্ষণের প্রয়োজন। যাতে ব্যাংক খাতের যেকোনো ধরনের সমস্যার সমাধান করা যায়। আমরা সফলভাবে ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপকল্প বাস্তবায়ন করেছি। এখন আমরা স্মার্ট বাংলাদেশ রূপকল্প অর্জনের জন্য পদক্ষেপ নিচ্ছি। আমাদের লক্ষ্য ২০২৭ সালের মধ্যে ৭৫ শতাংশ ক্যাশলেস লেনদেন সম্পন্ন করা।

এবিবির চেয়ারম্যান সেলিম আর এফ হোসেন বলেন, এবিবির ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন সামিট বাংলাদেশে ডিজিটাল আর্থিক সেবার প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিত করার প্রধান গতিধারাগুলো সম্পর্কে মূল্যবান পর্যবেক্ষণ দেবে। এটি দ্রুত ডিজিটাল রূপান্তরের মধ্যে পথচলার জন্য ব্যাংকগুলো যে কৌশল নিতে পারে তা বিশ্লেষণ করবে এবং আর্থিকসেবা খাতকে প্রভাবিত করে এমন বিদ্যমান নীতি এবং নিয়ন্ত্রক কাঠামোগুলো নিয়ে গবেষণা করবে। এছাড়াও এ খাতের স্টেকহোল্ডার, ইকোসিস্টেম এনাবেলার্স ও নীতি নির্ধারকদের এগিয়ে যাওয়ার পথ সুপারিশ করবে। সম্পাদনা: শামসুল হক বসুনিয়া

এমএ/এসএইচবি

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়