শিরোনাম
◈ ১৫৬ উপজেলায় ভোট আজ ◈ সংসদ সদস্য আজিমের অবস্থান জেনেছে ভারত পুলিশ ◈ বিধ্বস্ত হওয়ার আগে হেলিকপ্টারে কী করছিলেন ইরানের প্রেসিডেন্ট প্রকাশ্যে ‘শেষ’ ভিডিও ◈ সৈয়দপুর বিমানবন্দরের রানওয়েতে ফাটল, প্লেন চলাচলে বিঘ্ন ◈ ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী ও হামাস প্রধানের বিরুদ্ধে আইসিসিতে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদন ◈ নিরপেক্ষতা ক্ষুণ্ন হওয়ায় দুই ওসিকে প্রত্যাহার করলো ইসি  ◈ ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে মির্জা ফখরুলের শোক ◈ ইরানের প্রেসিডেন্টের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি প্রধানমন্ত্রীর শোক ◈ বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রীকে কঠোরভাবে বাজার তদারকির নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ◈ প্রতি বছর এপ্রিলের গরম ৪০ ডিগ্রি ছাড়াবে, বলছে রিপোর্ট

প্রকাশিত : ১৬ মে, ২০২৪, ০৭:৪৫ বিকাল
আপডেট : ১৬ মে, ২০২৪, ০৭:৪৫ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান অবৈধ ঘোষণা, বেতন ভাতা ফেরতের নির্দেশ

এমরান পাটোয়ারী, ফেনী: [২] ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেলের বিগত ৫ বছর দায়িত্ব পালন অবৈধ ঘোষনা করেছেন হাইকোট। পাশাপাশি বিগত ৫ বছরে তার বেতন ভাতাসহ যে সকল সুযোগ সুবিধা নিয়েছেন সে বাবদ ৩৩ লাখ ২৬ হাজার ৬১৯ টাকা ফেরত দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। 

[৩] বৃহস্পতিবার বিচারপতি জে.বি.এম হাসান এর বেঞ্চ এই রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষনার তিন মাসের মধ্যে সোহেল চৌধুরীকে টাকা ফেরত দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ব্যর্থ হলে জেলা প্রশাসককে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। রায়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তফসিল অনুযায়ী আসন্ন ছাগলনাইয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলা হয়েছে। 

[৪] এর আগে এডভোকেট এ.এস.এম শহীদ উল্যাহ নামে এক ব্যক্তি উপজেলা নির্বাচন নিয়ে ২০১৯ সালে আদালতে মামলা দায়ের করেন (রিট পিটিশন নং- ৩১৮৪/১৯ইং)। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল। আমি সোহেল চৌধুরীর প্রতিপক্ষ হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়। আমার মনোনয়নপত্র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা অবৈধ ঘোষণা করেন। পরে জেলা প্রশাসক বরাবর আপিল করি। সেখানেও অবৈধ ঘোষণা করা হয়। পরে মহামান্য হাইকোর্টে আপিল করি। আজ যে বেঞ্চে রায় দিয়েছেন সে বেঞ্চে আপিল করি। এই বেঞ্চের বিচারক বিচারপতি জেবিএম হাসান। হাইকোর্ট আমার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেন। হাইকোর্টের নির্দেশে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আমাকে প্রতীক দিয়েছেন। আমার প্রতীক ছিলো দোয়াত কলম। আমি একসপ্তাহ নির্বাচনী প্রচারনায় ছিলাম। এরপর সোহেল চৌধুরী হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে লীভ টু আপীল করেছন সুপ্রিমকোর্টে। সপ্রিম কোর্ট উভয় পক্ষের শুনানির পর ছাগলাইয়া উপজেলা নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করেন। যথারীতি ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচন হয়ে গেছে। এরপর করোনার কারনে ভোট বন্ধ ছিলো ২ থেকে আড়াই বছর। এরপর থেকে আমি এই মামলার পেছনে লেগে আছি। 

[৫] শহীদ উল্যাহ আরো বলেন, গত রোজার ঈদের আগে আমি সোহেল চৌধুরীর বিরুদ্ধে রুল ইস্যু করেছি। রুল ইস্যুর পর হাইকোর্ট বর্তমানে যে কোট রায় দিয়েছেন সে কোর্ট মেজবাউল হায়দার চৌধুরীর কাছে জানতে চেয়েছে আপনি কোন ক্ষমতার বলে গেজেট বাদে, শপথ বাদে ক্ষমতায় বসে আছেন। চার সপ্তাহের মধ্যে জানাতে বলেন। এটার পরিপ্রেক্ষিতে সোহেল চৌধুরী কোর্টে অ্যাপেয়ার করেছে। ১৫ দিনের শুনানি শেষে আজ বৃহস্পতিবার রায় ঘোষণা করা হয়েছে। রায়ে আমাকে বৈধ ঘোষণা করেছে। আরেকজন প্রার্থী ছিলো আবদুল হালিম তাকে অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। তার রিট পিটিশান ৩১৮৩/১৯। নির্বাচন ৫ম হবে না ৬ষ্ট হবে তা পুরো রায় ঘোষণার আগে বলা যাচ্ছেনা।

[৬] এডভোকেট এ.এস.এম শহীদ উল্যাহ পক্ষে আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, ব্যারিস্টার কফিল উদ্দিন। সম্পাদনা: এ আর শাকিল

প্রতিনিধি/এআরএস

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়