প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ৯ মাস পর এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু

হ্যাপি আক্তার: [২] দীর্ঘ ৯ মাস অপেক্ষার পর রোববার (১৪ নভেম্বর) থেকে শুরু হচ্ছে ২০২১ সালের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। শেষ হওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে ফল প্রকাশ করা হবে।

[৩] আবশ্যিক নয়, শুধু নৈর্বচনিক ৩টি বিষয়ে পরীক্ষা দিয়ে মাধ্যমিকের চৌকাঠ পেরোনোর যুদ্ধে আজ অবতীর্ণ হচ্ছে দেশের ২২ লাখ ২৭ হাজার ১১৩ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে এসএসসি পরীক্ষায় ১৮ লাখ ৯৯৮ জন, দাখিলে তিন লাখ এক হাজার ৮৮৭ জন এবং এসএসসি (ভোকেশনাল) এক লাখ ২৪ হাজার ২২৮ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। দেশের বাইরের আটটি কেন্দ্রে ৪২৯ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করছে। কালের কণ্ঠ,  সমকাল

[৪] কোভিড-১৯ এর মহামারি পরিস্থিতিতে পরীক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় নজর দিয়ে এবার বাড়তি প্রস্তুতি নিয়েছে কেন্দ্রগুলো। একই সঙ্গে শিক্ষক ও অভিভাবকসহ সংশ্লিষ্টদের জন্য পরীক্ষার আগে ও চলাকালে করণীয় নিয়ে নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে। দেশে কয়েক বছর ধরে ফেব্রুয়ারির শুরুতে এসএসসি পরীক্ষা শুরু হয়ে আসছে। ২০২০ সালে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরুর আগেই মাধ্যমিকের পরীক্ষা শেষ হয়। তবে কভিডের কারণে দেড় বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় এবার ৯ মাস পিছিয়ে এ পরীক্ষা নেওয়া হচ্ছে।

[৫] যেভাবে হবে পরীক্ষা: এবার ৩টি নৈর্বাচনিক বিষয়ে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আবশ্যিক বিষয় বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ গণিত, আইসিটি ও ধর্ম এবং চতুর্থ বিষয়ের পরীক্ষা নেওয়া হবে না। এসব বিষয়ে পরীক্ষার্থীদের আগের পাবলিক পরীক্ষার সাবজেক্ট ম্যাপিং করে মূল্যায়নের মাধ্যমে নম্বর দেওয়া হবে।

[৬] আগে প্রতিটি বিষয়ে তিন ঘণ্টা করে পরীক্ষা হলেও এবারে পরীক্ষা হবে দেড় ঘণ্টা। বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীদের পদার্থবিজ্ঞান, রসায়ন, উচ্চতর গণিত এবং জীববিজ্ঞানের পরীক্ষা হবে। প্রতিটি পরীক্ষায় রচনামূলক আটটি প্রশ্ন থাকবে। সেখান থেকে মাত্র দুটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। ১০ নম্বর করে মোট নম্বর হবে ২০। এবং নৈর্ব্যক্তিকে ২০টি প্রশ্ন থাকবে। সেখান থেকে উত্তর দিতে হবে ১২টির। নম্বর ১২।

[৭] আর ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিকের হিসাববিজ্ঞান, ব্যবসায় উদ্যোগ, ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং, বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্ব সভ্যতা, ভূগোল ও পরিবেশ, পৌরনীতি ও নাগরিকতা এবং অর্থনীতি বিষয়ে পরীক্ষা হবে। এসব বিষয়ে রচনামূলক ১১টি প্রশ্নের মধ্যে উত্তর দিতে হবে মাত্র তিনটির। ১০ নম্বর করে মোট নম্বর হবে ৩০। নৈর্ব্যক্তিক ৩০টির মধ্যে ১৫টির উত্তর দিতে হবে। নম্বর ১৫।

[৮]পরীক্ষার্থীর ব্যাবহারিক খাতার (নোট বুক) নম্বর হবে ২৫। বিজ্ঞান বিভাগের রচনামূলক ২০ নম্বরকে ৫০ এবং নৈর্ব্যক্তিকের ১২ নম্বরকে ২৫ নম্বরে এবং মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের পরীক্ষার্থীদের রচনামূলক ৩০ নম্বরকে ৭০ এবং নৈর্ব্যক্তিক ১৫ নম্বরকে ৩০ নম্বরে রূপান্তর করে প্রাপ্ত নম্বর নির্ধারণ করা হবে।

[৯] মানতে হবে যেসব নির্দেশনা: এদিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে, যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে, পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষাকক্ষে নিজ নিজ আসনে বসতে হবে, প্রথমে বহুনির্বাচনী ও পরে সৃজনশীল/রচনামূলক (তত্ত্বীয়) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এমসিকিউ ও সিকিউ অংশের পরীক্ষার মধ্যে কোনো বিরতি থাকবে না। সকাল ১০টা থেকে অনুষ্ঠেয় পরীক্ষার ক্ষেত্রে সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে অলিখিত উত্তরপত্র ও বহুনির্বাচনী ওএমআর শিট বিতরণ, সকাল ১০টায় বহুনির্বাচিনী প্রশ্নপত্র বিতরণ, সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে বহুনির্বাচনী উত্তরপত্র (ওএমআর শিট সংগ্রহ ও সৃজনশীল প্রশ্নপত্র বিতরণ করা হবে। দুপুর ২টা থেকে অনুষ্ঠেয় পরীক্ষার ক্ষেত্রে দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে অলিখিত উত্তরপত্র ও বহুনির্বাচনী ওএমআর শিট বিতরণ, দুপুর ২টায় বহুনির্বাচনী প্রশ্নপত্র বিতরণ, আর দুপুর ২টা ১৫ মিনিটে বহুনির্বাচনী (ওএমআর শিট) উত্তরপত্র সংগ্রহ ও সৃজনশীল প্রশ্নপত্র বিতরণ করা হবে।

[১০] পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষায় সাধারণ সায়েন্টিফিক ক্যালকুলেটর ব্যবহার করতে পারবে। প্রগ্রামিং ক্যালকুলেটর ব্যবহার করা যাবে না। পরীক্ষাকেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফিচার ফোন (স্মার্টফোন ছাড়া) ব্যবহার করতে পারবে। পরীক্ষার হলে অন্য কেউ ফোন ব্যবহার করতে পারবে না।

সর্বাধিক পঠিত