প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] দেশ সেরা কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড

রুবেল মজুমদার : [২] উদ্ভাবন কর্মপরিকল্পনার বার্ষিক চূড়ান্ত মূল্যায়নে দেশ সেরা হয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কুমিল্লা। শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের আওতাধীন অধিদপ্তর- দপ্তর- সংস্থার ২০২০-২০২১ সালের উদ্ভাবন কর্মপরিকল্পনার চূড়ান্ত মূল্যায়নে গতকাল রবিবার প্রকাশিত হয়। এতে দেশের ২২ টি প্রতিষ্ঠানের চুড়ান্ত মূল্যায়ন প্রতিবেদনে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড প্রথম স্থানে রয়েছে।

[৩] এই অসাধারণ সাফল্যে অর্জনে মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি, মাননীয় শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, শিক্ষা সচিব মাহবুব হোসেন মহোদয়, কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের সকল কর্মকর্তা – কর্মচারী ও সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যান প্রফেসর মো. আবদুস ছালাম। তিনি বলেন, এ অর্জনকে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড পরিবারের টিম স্পিটির এর ফসল হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন।

[৪] রোববার (৩১ অক্টোবর) শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের জারি করা এক প্রজ্ঞাপন সূত্রে জানা যায়, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের আওতাধীন অধিদপ্তর- দপ্তর – সংস্থার ২০২০-২০২১ সালের বার্ষিক উদ্ভাবন কর্মপরিকল্পনার চূড়ান্ত মূল্যায়নে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয় । এ মন্ত্রনালয়ের আওতাধীন ২২ টি প্রতিষ্ঠানের চুড়ান্ত মূল্যায়ন তালিকায় দি¦তীয় অবস্থানে রয়েছে প্রধামন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট, তৃতীয় স্থানে রয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) এবং ১০ম স্থানে রয়েছে বিশ^বিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) এবং ১৮ তম স্থানে রয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড ঢাকা।

[৫] কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড সচিব প্রফেসর নূর মোহাম্মদ জানান, সকলের সহযোগিতায় এই অসামান্য অর্জন সম্ভব হয়েছে।এই অর্জনে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড পরিবার ধন্য। অভিনন্দন ও বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানাই আমাদের টিম লিডার শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিত্ব কুমিল্লার শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুস ছালাম স্যারকে।

[৬] এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যান আবদুস ছালাম বলেন,কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের আওতাধীন ছয় জেলা কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চাঁদপুর, নোয়াখালী, ফেনী ও লক্ষ্মীপুর। শিক্ষা বোর্ড ক্যাম্পাস থেকে প্রতিটি জেলার দূরত্ব অনেক। এ অবস্থায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানদের বোর্ডে সশরীরে এসে কাজ আদায় করে নিতে সময় ও অর্থ দুটিই ব্যয় হচ্ছে। তার ওপর প্রতিষ্ঠানপ্রধান কর্মস্থলে না থাকলে একাডেমিক ও প্রশাসনিক কাজের গতি অনেক ক্ষেত্রে ব্যাহত হচ্ছে।

[৭] এ অবস্থায় কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড ২০১৭ সাল থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের স্বীকৃতি নবায়ন ও অনলাইনে রেজিস্ট্রেশনের (নিবন্ধন) কাজ শুরু করে। এতে এ কাজে নথি নিয়ে প্রতিষ্ঠানপ্রধানদের বোর্ডে আসতে হয় না। অনলাইনে আবেদন করে, অনলাইনেই কাজ হয়ে যায়।

[৮] ২০১৮ সালে নাম ও বয়স সংশোধন, কলেজ পর্যায়ের ছাড়পত্র দেওয়া, ২০১৯ সালে বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির অনুমোদন, ২০২০ সালে কলেজ গভর্নিং বডির অনুমোদন, বিদ্যালয় ছাড়পত্র দেওয়াসহ মোট ১৭টি কাজ করে। সফটওয়্যার তৈরি করে অনলাইনে এই কাজগুলো করা হচ্ছে। এতে খুব দ্রুত সেবা পাচ্ছেন শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও তাঁদের অভিভাবকেরা। অনেকটা ঘরে বসেই সেবা পাচ্ছেন তাঁরা। সারা দেশের এত নামকরা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে প্রথম হওয়ায় পুরো শিক্ষা বোর্ড পরিবার খুশি।

সর্বাধিক পঠিত