প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মুশফিক ওয়াদুদ : বিএনপি ও জামায়াতের প্রধান সমস্যা ‘মিডিয়া না বোঝা’

মুশফিক ওয়াদুদ : বিএনপির কোনো নেতার্কীদের যদি জিজ্ঞাস করেন যে তাদের প্রধান চ্যালেঞ্জ কী তারা বলবে ভারত। তাদের মাথায় ঢুকে আছে যে ভারতের কারণে তারা ক্ষমতায় আসতে পারছেন না। কিন্তু এমন একটি ভাবনায় বড় ধরনের সমস্যা আছে। ভারত হয়তো একটি কারণ-বড় একটি কারণ তবে একমাত্র কারণ নয় । অন্য কারণগুলো এড্রেস করতে পারলে ভারত ইস্যুটি এতোটা বড় হয়ে হয়তো দেখা দিতো না অথবা সেটাকে হ্যান্ডেল করতে পারতো বিএনপি।

অন্য ৩টি প্রধান কারণ আমার কাছে মনে হয় [১] ইসলামপন্থীদের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে একটি সুনির্দিষ্ট পলিসি নিতে না পারা [২] চীনের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়টি নিয়ে পশ্চিমাদের কাছে সঠিক ব্যাখ্যা উপস্থাপন করতে না পারা এবং [৩] দুর্লভ মিডিয়া পলিসি এবং পলিটিক্যাল কমিউনিকেশন। প্রথম দুটি বিষয় নিয়ে বেশ কিছু পোস্ট লিখেছি আগে। আমার কাছে বিএনপি এবং সঙ্গে জামায়াতের প্রধান সমস্যা মনে হয় মিডিয়া না বোঝা, পলিটিক্যাল কমিউনিকেশনের ভালো কৌশল না থাকা এবং এই বিষয়টিই বিএনপি আর আওয়ামী লীগের মধ্যে পার্থক্য করে দেয়। একটি উদাহরণ দিই। তারেক জিয়াকে নিয়ে বিএনপি আমলে যে ক্যাম্পেইন হয়েছিলো, বিএনপি আসলে সেটা মোকাবেলা করতে পারেনি। সেটাই আসলে সেই সময় বিএনপি-জামায়াত সরকারের সবচেয়ে বড় র্দুলতা ছিলো এবং সেই ন্যারেটিভের কারণে অনেক কিছু ঘটেছে।

আওয়ামী লীগের আমলে এমন কোনো ক্যাম্পেইন আসলে সফল হয়নি। এর প্রধান কারণ হলো আওয়ামী লীগের পলিটিক্যাল কমিউনিকেশন খুবই প্রফেশনাল হাতে হ্যান্ডেল হয়েছে এবং দেশের মিডিয়ায় বিএনপির গত দুই তিন দশকে কখনোই কর্তৃত্ব ছিলো না। সাংবাদিকদের একটি বড় অংশ বিএনপি-জামায়াতপন্থি হলেও ডানপন্থিদের সাংবাদিক নেতা নেই আসলে। প্রতিষ্ঠান দাঁড় করিয়ে টিকে থাকার মতো সাংবাদিক নেতা নেই ডানপন্থিদের। যে কয়টা পত্রিকা/টেলিভিশন হয়েছে সেগুলোর বেশিরভাগই সফল হয়নি। এক দশক আগে বিএনপি এবং জামায়াতের মিডিয়া এবং পলিটিক্যাল কমিউনিকেশনের যে অবস্থা ছিলো আগের তুলনায় তার অবস্থা এখন আরো খারাপ অবস্থানে।

ডিজিটাল এই যুগে বিএনপির বেশিরভাগ প্রধান নেতাদের কোনো সোশ্যাল মিডিয়া একাউন্ট নেই। দলটির পলিটিক্যাল কমিউনিকেশন যে খারাপ, এই সেক্টরে মনোযোগ দেওয়া দরকার এটি বুঝতেও পারছে বলে মনে হয় না। লেখক ও গবেষক

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত