প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] অর্থ পাচারকারী স্থানীয় ও প্রবাসী চক্রকে ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে সৌদি আরব

আব্দুল্লাহ আল মামুন, সৌদিআরব: [২] সৌদি নাগরিক এবং প্রবাসীদের ২৪ সদস্যের একটি অপরাধী চক্র যারা মোট ১৭ বিলিয়ন সৌদি রিয়াল (৪.৫৩২ বিলিয়ন ডলার) মানিলন্ডারিং করেছে। তাদের প্রত্যেককে সোমবার ২০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত।

[৩] আরব নিউজের প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায়, রিয়াদের আপিল আদালত চক্রটিকে মোট ৭৫ মিলিয়ন ডলার জরিমানা করেছে এবং ঘটনাস্থলে পাওয়া তাদের সমস্ত অর্থ বাজেয়াপ্ত করার আদেশ দিয়েছে।

[৪] আদালত দোষী সাব্যস্ত সৌদি নাগরিকদের উপর ২০ বছরের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে এবং প্রবাসীদের তাদের কারাবাস ভোগ করার পর নিজ দেশে নির্বাসন দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে।

[৫] আদালত বলেছে, যে উক্ত চক্রটি তাদের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড সংগঠিত করার মধ্যে, বাণিজ্যিক সুবিধার আড়ালে, কারখানা, কোম্পানি, প্রতিষ্ঠান এবং মেডিকেল ক্লিনিকও অন্তর্ভুক্ত ছিল।

[৬] আদালত কিছু অভিযুক্তকে মানি-লন্ডারিং অপারেশন সম্পর্কে জানা সত্ত্বেও রিপোর্ট না করা, অপরাধের কমিশন সম্পর্কিত সহায়তা এবং পরামর্শ প্রদান এবং ঘুষের অপরাধের জন্য দোষী সাব্যস্ত করেছে।

[৭] নাজাহা, সৌদি পর্যবেক্ষণ এবং দুর্নীতি দমন কর্তৃপক্ষ গত এক বছরে দুর্নীতি, জালিয়াতি এবং ঘুষের বিরুদ্ধে কঠোর অভিযান চালিয়েছে।

[৮] সাম্প্রতিক এদের মধ্যে রয়েছে ফেব্রুয়ারিতে ৬৫ জন সৌদি এবং প্রবাসীদের গ্রেপ্তার, যাদের মধ্যে ৪৮ জন ৭টি ভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সরকারি কর্মচারী ছিলেন।

[৯] অভিযোগগুলির মধ্যে ছিল ঘুষ, প্রভাব ও ক্ষমতার অপব্যবহার, সেইসাথে প্রতারণা এবং জালিয়াতি।

[১০] নাজাহা আর্থিক ও প্রশাসনিক দুর্নীতির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছে,একজন আইনজীবী মাজেদ গারুব বলেন যে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান একটি ভালো কাজ এবং আমরা যখনই এই গ্রেফতারের সুসংবাদ শুনি তখনই আমরা এর সাফল্য প্রত্যক্ষ করি।

[১১] গত মার্চে, দুই সৌদি নাগরিককে ২৮ বছরের কারাদণ্ড এবং ৩.৪৭ মিলিয়ন ডলার জরিমানা করা হয়েছিলো। যারা বিদেশে অর্থ পাচার করেছিলো।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত