প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] পেগাসাস: ‘জিরো ক্লিকে’ মোবাইল ফোন হ্যাক

মারুফ মালেক: [২] সম্প্রতি পেগাসাস নামের একটি সফটওয়্যার সারা বিশ্বে হৈ চৈ ফেলে দিয়েছে যার সাহায্যে অভিনব পদ্ধতিতে আই-ফোনের মতো অত্যন্ত সুরক্ষিত স্মার্ট-ফোনের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাও ভেঙে ফেলা সম্ভব হয়েছে। বলা হচ্ছে, এই সফটওয়্যার ব্যবহার করে বিভিন্ন দেশের ৫০ হাজারের মতো মানুষের ফোনে আড়ি পাতা হয়েছে এবং ফোনের ব্যবহারকারীরা এবিষয়ে কিছু জানতেও পারেনি।

[২] ইসরায়েলি একটি প্রতিষ্ঠান এনএসও এই সফটওয়্যারটি তৈরি করেছে যা বিভিন্ন দেশের সরকারের কাছে বিক্রি করা হয়েছে। এনএসও বলছে, সাধারণ মানুষের ফোনে আড়ি পাতার জন্য তাদের পেগাসাস কেউ ব্যবহার করেনি। সাধারণত ই-মেইল কিম্বা বার্তা পাঠিয়ে ফোনে হ্যাক করার চেষ্টা করা হয়। কেউ যখন সেই ই-মেইলের লিঙ্ক বা মেসেজে ক্লিক করেন তখনই ফোনে একটি সফটওয়্যার ইন্সটল হয়ে যায়, যার সাহায্যে ওই ফোনের ওপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করা হয়। কিন্তু পেগাসাসের সাহায্যে এই কাজটিই করা হয়েছে অভিনব উপায়ে- ফোনের ব্যবহারকারীর কোনো লিঙ্কে ক্লিক করার জন্য তাদের অপেক্ষা করতে হয়নি।

[৩] প্রযুক্তিবিদরা বলছেন, পেগাসাস একটি শক্তিশালী সফটওয়্যার যার সাহায্যে নানা উপায়ে ফোন হ্যাক করা যায়। তবে মোবাইল ফোন হ্যাক করার সবচেয়ে মারাত্মক উপায় হচ্ছে- ‘জিরো ক্লিকে’ কারো ফোনে আড়ি পাতা। অর্থাৎ এর জন্য আপনাকে কোনো লিঙ্কে ক্লিক করতে হবে না, কিছু ডাউনলোড করতে হবে না, কোনো মেসেজের রিপ্লাই দিতে হবে না, কিছু খুলতে হবে না, কোনো অ্যাপ ইন্সটল করতে হবে না, কোনো ওয়েবসাইটেও যেতে হবে না। এক কথায় আপনাকে কিছুই করতে হবে না। হ্যাক করার জন্য হ্যাকারদের শুধু প্রয়োজন হবে আপনার ফোন নম্বর, অথবা ই-মেইল অ্যাড্রেস যা দিয়ে আপনি আপনার ফোন ব্যবহার করেন।

[৪] আয়ারল্যান্ডে তথ্য প্রযুক্তিবিদ নাসিম মাহ্মুদ, যিনি ডাবলিনে চিকিৎসা ও উদ্ভাবন সংক্রান্ত আমেরিকান একটি প্রতিষ্ঠান ইউনাইটেড হেলথ গ্রুপে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে কাজ করছেন, তিনি বলছেন, জিরো ক্লিকে মোবাইল ফোনে কোনো সফটওয়্যার স্থাপন করা খুবই কঠিন ও আধুনিক একটি ধাপ। মোবাইল ফোন কিন্তু নিয়মিত আপডেট হয়। যখন আপডেট হয় তখন এটি নতুন একটি সফটওয়্যার তার সুনির্দিষ্ট উৎস থেকে ইন্সটল করে থাকে। কিন্তু জিরো ক্লিকে সেটা করতে পারার অর্থ হচ্ছে হ্যাকাররা তখন ওই ফোনের অপারেটিং সিস্টেমের কর্তৃত্ব নিয়ে নেয়, যেটা অত্যন্ত ভয়ের ব্যাপার।

[৫] বিজ্ঞানীরা বলছেন, এই আড়ি পাতার পুরো প্রক্রিয়াটিই ঘটে নিরবে এবং অবশ্যই ব্যবহারকারীর অজান্তে। এজন্য ফোনে যে মেসেজ পাঠানো হয়, নোটিফিকেশনে সেটি দেখাও যায় না। এর পর ম্যালওয়্যারটি নিজে নিজেই ফোনে ইন্সটল হয়ে যায়। সূত্র: বিবিসি বাংলা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত