প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সংঘর্ষ বন্ধে আফগানিস্তান সীমান্তে সেনা মোতায়েন করেছে পাকিস্তান

লিহান লিমা: [২] মার্কিন ও ন্যাটো সৈন্য আফগানিস্তান ছাড়ার পর তালেবান যখন দেশটির দুই-তৃতীয়াংশ কবজা করেছে তখন আফগানিস্তান সীমান্তে সেনাবাহিনী মোতায়েন করেছে পাকিস্তান। হিন্দুস্তান টাইমস

[৩] পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ রশিদ আহমেদ বলেন, সীমান্তে সংঘর্ষ বৃদ্ধি পাওয়ায় নিরাপত্তা লঙ্ঘন হচ্ছে। তার ওপর শরণার্থীর সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় আমরা সশস্ত্র সৈন্য মোতায়েন করেছি। সেই সঙ্গে অবৈধভাবে সীমান্ত পার এবং চোরাচালান ঠেকাতে নিয়মিত বাহিনীও থাকবে।

[৪] পাকিস্তানের গণমাধ্যম ডন জানায়, শুধু সাধারণ আফগান শরণার্থীই নয় সীমান্তে তালেবান সেনা এবং আফগান সেনাবাহিনীর সদস্যদের ও অনুপ্রবেশের চ্যালেঞ্জ পাকিস্তান সেনাবাহিনীর মোকাবেলা করতে হবে। তারা আরো বলেন, ইতোমধ্যেই কৌশলগত সীমান্ত কবজা করেছে তালেবান, পাকিস্তান প্রশাসন আশঙ্কা করছে যদি তালেবান পাকিস্তানে প্রবেশ করে ফেলে তবে পাকিস্তানের মূলভূমিতে সংঘর্ষ ও সহিংসতা ছড়িয়ে পড়বে।

[৫] জুলাইতে তালেবানের সঙ্গে লড়াই এড়াতে এক হাজারের বেশি আফগান সৈন্য তাজিকিস্তানে পালিয়ে যায়।

[৬] তালেবান কৌশলগত গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখলের পর পাকিস্তান ও আফগানিস্তান সরকার ইতোমধ্যেই কৌশলগত ইস্যুতে দ্বন্দ্বে জড়িয়েছে। আফগানিস্তানের বিমান বাহিনী পাকিস্তানের সীমান্ত থেকে তালেবানের ঘাঁটিতে হামলা চালাতে চাইলে ইসলামাবাদ এই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে।

[৭] বিশ্লেষকরা বলছেন, পাকিস্তান সরকার নিজেদের আকাশপথ আফগান সেনাবাহিনীকে ব্যবহার করতে দিয়ে তালেবানের সঙ্গে ঝামেলায় জড়াতে চায় না। আফগান সংঘর্ষে কোনো পক্ষে অবস্থান নিয়ে পাকিস্তানের মাটিকে ব্যবহার করতে না দেয়াই এখন পাকিস্তানের নেতৃত্বের চ্যালেঞ্জ। পাকিস্তান আরো বলেছে, তারা আফগানিস্তান থেকে কোনো শরণার্থীকে স্বাগত জানাবে না।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত