প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চীনে ডিজিটাল মুদ্রা লেনদেন হয়েছে ৫.৩ বিলিয়ন ডলারের

রাশিদ রিয়াজ : প্রায় ২১ মিলিয়ন চীনা নাগরিক এখন ভার্চুয়াল ওয়ালেট ব্যবহার করছেন। পিপলস ব্যাংক অব চায়না বলছে চীনের ডিজিটাল মুদ্রা হিসেবে ইউয়ানের লেনদেন ৫.৩ ডলার ছাড়িয়েছে। চীনা মুদ্রায় এর লেনদেনের পরিমান সাড়ে ৩৪ বিলিয়ন ইউয়ান। ভার্চুয়াল কারেন্সি বা ডিজিটাল মুদ্রার লেনদেনের উদ্যোগ গত বছর নেয় চীন। ২০.৮ মিলিয়নের বেশি চীনা নাগরিক এখন ভার্চুয়াল কারেন্সিতে নিয়মিত লেনদেন করছেন। এ পর্যন্ত লেনদেনের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭০.৭ মিলিয়ন। ব্লুমবার্গ

পিপলস ব্যাংক অব চায়না এক বিবৃতিতে জানিয়েছে তারা এধরনের ভার্চুয়াল লেনদেনের সুযোগ আরো বৃদ্ধি করবে। এধরনের লেনদেন ব্যবস্থা আরো উন্নত করতে চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক নিরবচ্ছিন্নভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এধরনের ডিজিটাল কারেন্সি নিয়ে চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক গবেষণা করছে। আন্তর্জাতিক লেনেদেনে ভার্চুয়াল এই লেনদেন ব্যবস্থা চালুর কথাও ভাবছে চীন। তবে তা মার্কিন ডলারের ওপর আন্তর্জাতিক লেনদেনের যে নির্ভরশীলতা রয়েছে তা অনেকটা হ্রাস করবে। চীনের কর্মকর্তারা বলছেন অভ্যন্তরীণ বাজারে ব্যাপক লেনদেনে এক্ষেত্রে কোনো ত্রুটি রয়েছে কি না তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

২০১৯ সালের শেষ দিকে ডিজিটাল মুদ্রা লেনদেন শুরু করার পর এপর্যন্ত ১১টি শহরে এধরনের লেনদেন সম্প্রসারণ হয়েছে। প্রথমে পরীক্ষামূলকভাবে লেনদেনের পর ধীরে ধীরে চীনা নাগরিকরা এতে অভ্যস্থ হয়ে উঠছেন। চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক বাণিজ্যিক ব্যাংক ও অন্যান্য আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে চীনা নাগরিকদের ডিজিটাল মুদ্রা লেনদেনের সুযোগ দিচ্ছে। চীনা নাগরিকদের পারিবারিক সঞ্চয় পৌঁছেছে ৪৭ ট্রিলিয়ন ডলার। চীন সরকার এধরনের সঞ্চয় দেশটি ছাড়াও যাতে বিদেশে দ্রুত বিনিয়োগ করা যায় সেজন্যে প্রয়োজনীয় অনুমতি দিচ্ছে এবং এক্ষেত্রে ডিজিটাল মুদ্রা লেনদেন মার্কিন ডলারের মাধ্যম ছাড়া এধরনের বিনিয়োগকে আরো অধিক নিশ্চিত করবে বলে বিশ্লেষকরা মনে করছেন। বিশ^ অর্থনীতিতে ডলারের বিপরীতে চীনা মুদ্রার প্রভাবও বাড়বে বলে বিশ্লেষকদের ধারণা।

একই সঙ্গে চীন রাশিয়াকে মার্কিন ডলারের বিপরীতে ইউয়ানে লেনদেনে উৎসাহী হয়ে ওঠায় স্বাগত জানিয়েছে। সম্প্রতি রাশিয়া এর ন্যাশনাল ওয়েলথ ফান্ডে ডলারের পরিবর্তে চীনা মুদ্রা ইউয়ানকে প্রাধান্য দেওয়ার ঘোষণা দেয়। এধরনের ফান্ডে মার্কিন ডলারের অংশ ৩৫ শতাংশ থাকলেও তা এখন শুণ্য শতাংশে দাঁড়িয়েছে। রাশিয়ার ন্যাশনাল ফান্ডে ইউয়ানের পরিমান দাঁড়িয়েছে প্রায় সাড়ে ৩০ শতাংশ। ইউরোর পরিমান হচ্ছে ৩৯.৭ শতাংশ। চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন রাশিয়ার এ ধরনের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন এটি চীনের অর্থনৈতিক উন্নয়নের ওপর রুশ আস্থা ও দুটি দেশের মধ্যে সহযোগিতা আরো বৃদ্ধি পাবে। আন্তর্জাতিকভাবে ইউয়ানকে আরো সুপরিচিত ও লেনদেনে অংশ হিসেবে অপরিহার্য করে তোলার জন্যেই মূলত দেশটি ডিজিটাল মুদ্রার লেনদেন শুরু করে।

সর্বাধিক পঠিত