শিরোনাম
◈ চাঁদপুরে বাসায় ঢুকে আ.লীগ নেতাকে হত্যা ◈ ভোটচুরির সুযোগ পাচ্ছে না বলে নির্বাচন নিয়ে বিএনপির শঙ্কা: প্রধানমন্ত্রী  ◈ জলবায়ু ইস্যুতে ধনী দেশগুলোর অবদান দুঃখজনক: প্রধানমন্ত্রী ◈ জাতিসংঘ ও বাংলাদেশের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সহযোগিতার প্রশংসা করলেন গুতেরেস  ◈ বিপর্যস্ত রুশ বাহিনী, বিপজ্জনক দিকে মোড় নিচ্ছে ইউক্রেন যুদ্ধ ◈ কৃষ্ণা-শামসুন্নাহারকে টাকা, সানজিদাকে আইফোন দিল বাফুফে  ◈ শাওনের মৃত্যুতে গণঅভ্যুত্থান ঘটেছে: মির্জা ফখরুল ◈ বিশ্ববাজারে দুই বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন দামে স্বর্ণ ◈ যেভাবে পাওয়া যাবে কাতার বিশ্বকাপের ‘হায়া কার্ড’ ◈ নিজ গ্রামে উষ্ণ অভ্যর্থনায় অভিভূত সাবিনা

প্রকাশিত : ৩০ মে, ২০২১, ০৪:৪০ দুপুর
আপডেট : ৩০ মে, ২০২১, ০৪:৪০ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

[১] আমার ছেলে তো কোনো দোষ করেনি, সে শুধু প্রকৃত রাজনীতি করতে চেয়েছিলো

জিএম মিজান : [২] জেলা ছাত্রলীগ নেতা তাকবীর হত্যা মামলা প্রায় আড়াই মাস অতিবাহিত হওয়ার পরেও হত্যা মামলার মূল আসামীদের কেউ গ্রেফতার না হওয়ায়, সন্তান হত্যার ক্ষোভে পরিবারের সদস্য ও এলাকাবাসী মানববন্ধন করেছে।

[৩] রোববার বেলা ১১টায় শহরের জিরো পয়েন্ট সাতমাথায় খতাকবীর হত্যার মুল আসামীসহ সকল আসামীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে।

[৪] মানববন্ধনে সন্তান হারা পিতা জহুরুল ইসলাম মিডিয়ার মাধ্যমে দেশবাসীর কাছে প্রশ্ন করেন, ‘আমি কী বলব? এই সাতমাথায় অনেক বক্তব্য দিয়েছি, সমাবেশ করেছি। আজও আমাকে দাঁড়াতে হয়েছে। কেন?’ তিনি চিৎকার বলেন, ‘বগুড়াসহ দেশবাসী একটু দাঁড়ান, একটু দেখেন, একজন সন্তান হারা পিতার একটু আর্তনাদ শোনেন। আমি আমার ছেলের হত্যার বিচার চাইতে এসেছি। গত ১১ মার্চ এই সাতমাথায় আমার ছেলেকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কুপিয়ে জখম করেছে। বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঁচ দিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। আমি তো অনেকের কাছে বিচার চেয়েছি এই সাতমাথায়। আজ আপনারা আমার ছেলের হত্যার বিচার করে দিন। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার ছেলে হত্যার বিচার চাই।

[৫] মানববন্ধন সমাবেশে অংশ নেয় সিপিবি জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ফরিদ। তিনি বলেন, গত ১১ মার্চ সাতমাথায় জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাঃ সম্পাদক তাকবীর ইসলামকে কুপিয়ে আহত করা হয়। এর কয়েকদিন পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাকবীরের মৃত্যু হয়। কিন্তু মৃত্যুর আগে তাকবীর হত্যাকারীদের নাম স্পষ্ট করে বলে যায়। তারপরও প্রশাসন এজাহারভুক্ত বা তাকবীরের বলে যাওয়া ব্যক্তিদের গ্রেফতারে ব্যর্থ হয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়