প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনাকালেও ফুলে-ফেঁপে উঠেছে যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ ১০ কোম্পানি, আবারও এক নম্বরে জেপি মর্গান

সালেহ্ বিপ্লব: [২] করোনা মহামারিতে বিশ্ব অর্থনীতি যখন মন্দা ও অস্থিরতায় নাজেহাল, তখন নির্বিকার-নিরুদ্বেগ ছিলো যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ ১০ কোম্পানি। করোনাকালে এই দশের কলেবর বেড়েছে, টাকাও কামিয়েছে বিস্তর। ফোর্বস

[৩] ১৯তম বার্ষিক ফোর্বস গ্লোবাল ২০০০ তালিকা করা হয়েছে বেশ কয়েকটি মানদণ্ডে। মার্কেট ভ্যালু, সেলস, প্রফিট ও অর্জিত সম্পত্তি- এই কটি বিষয়ে অগ্রগতি হিসেব করা হয়েছে। গেলো ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত ১২ মাসের যে তথ্য-উপাত্ত, তাতে সব মানদণ্ডেই স্ফীত হয়েছে ১০ শীর্ষ মাকিন কোম্পানির ব্যবসা।

[৪] এক বছরে এই প্রতিষ্ঠানগুলোর বিক্রির সম্মিলিত পরিমাণ ২ দশমিক ২ ট্রিলিয়ন ছাড়িয়ে গেছে। এটি আগের বছরের তুলনায় ২৯ শতাংশ বেশি।

[৫] লাভের পরিমাণ ৩১৬ বিলিয়ন ডলার, আগের বছরের চেয়ে ১৭ শতাংশ বেশি।

[৬] অর্জিত সম্পদের মূল্য ১৩ দশমিক ২ ট্রিলিয়ন ডলারের চেয়ে বেশি, যা আগের বছরের চেয়ে বেড়েছে ৫ শতাংশ।

[৭] দশ জায়ান্টের সম্মিলিত মার্কেট ভ্যালুর হিসেব-নিকেশটা চূড়ান্ত হয়নি এখনও, তবে প্রাথমিক যোগ-বিয়োগে বলা যায়, সেটিও প্রায় ৮৭ শতাংশ বেড়ে ৯ দশমিক ৬ ট্রিলিয়ন ডলার হয়ে গেছে।

[৮] জেপি মরগ্যান পর পর তৃতীয়বার ধরে রেখেছে যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড়ো কোম্পানির আসন। আবারও দ্বিতীয় স্থানে এসেছে ওয়ারেন বাফেটের হোল্ডিং কোম্পানি বার্কশায়ার হাথাওয়ে। তৃতীয় স্থানে রয়েছে অ্যাপল।

[৯] অ্যালফাবেট, মাইক্রোসফট, সিটি গ্রুপ এবং ওয়েলস ফার্গো শীর্ষ দশে তাদের আগের অবস্থানই ধরে রেখেছে। নতুন করে এই দশে জায়গা করে নিয়েছে দুটি কোম্পানি।

সর্বাধিক পঠিত