প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বঙ্গবন্ধুকে ফিরে পাবার অতৃপ্ত বাসনায় ১৭ মে মানুষের ঢল নেমেছিল বিমানবন্দরে: আমু

সমীরণ রায়: [২] আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমন্বয়ক আরও বলেন, ৭৫’র বঙ্গবন্ধুকে হারানোর পর তাঁর অসমাপ্ত কাজ সম্পন্ন ও নতুন করে ঘুরে দাঁড়াতে ১৯৮১ সালের ১৭ মে’র মতো এমন একটি শুভ দিনের অপেক্ষায় ছিলো বাঙালি। তাইতো শেখ হাসিনার স্বদেশ ফেরার দিন বিমান বন্দরে ছিল বাধ ভাঙা মানুষের জোয়ার।

[৩] তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ভুলন্ঠিত হয় মুক্তিযুদ্ধের চেতনা। জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে দল ভাঙার রাজনীতি, রাজনীতিবিদদের চরিত্র হনন, সর্বোপরি রাজনীতিকে বিরাজনীতিকরণের মাধ্যমে দেশে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে। এই প্রতিকূল অবস্থায় দেশে ফিরে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের সংগ্রামে আত্মনিয়োগ করে দেশকে উন্নয়ন আর অগ্রগতির পথে নিয়ে এসেছেন শেখ হাসিনা।

[৪] আমির হোসেন আমু বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পথ ধরেই শেখ হাসিনা দেশকে নিয়ে যাচ্ছেন উন্নয়নের মহাসড়কে। স্বল্পোন্নত দেশ থেকে বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত করেছেন তিনি। মেট্রোরেল, পদ্মা সেতু, রূপপুর পরমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প, মাতার বাড়ি ও পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দর, ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে ও কর্ণফুলী টানেলের কাজ এগিয়ে চলেছে দ্রুত গতিতে। এই অগ্রযাত্রা শেখ হাসিনার স্বদেশে ফিরে আসার ফল।

[৫] তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সাহসী পদক্ষেপে বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে এসেছে বাংলাদেশ। বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার, যুদ্ধাপরাধের বিচার সম্পন্ন করে চলেছেন, তেমনি ছিটমহল সমস্যার সমাধান, সমুদ্রসীমানা বিরোধেরও নিষ্পত্তি করেছেন শেখ হাসিনা। করোনা প্রতিরোধে প্রথম থেকেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মেনে চললে আমাদের ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ অনেক কম হতো।

[৬] রোববার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে এক ভিডিও বার্তায় তিনি এসব কথা বলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত