প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কল্লোল মোস্তফা: বামপন্থী শাসিত কেরালা রাজ্যে চিকিৎসা সামগ্রীর কোনো সংকট নেই

কল্লোল মোস্তফা: ভারত জুড়ে অক্সিজেন, আইসিইউ, ভেন্টিলেটরসহ চিকিৎসা সামগ্রীর ব্যাপক সংকট থাকলেও বামপন্থী শাসিত কেরালা রাজ্যে চিকিৎসা সামগ্রীর এ ধরণের কোনো সংকট নেই। কেরালা তার নিজের অক্সিজেন চাহিদা পূরণ করেও গোয়া, কর্ণাটক ও তামিলনাড়ুতে মেডিক্যাল অক্সিজেন ট্যাংকার পাঠাচ্ছে। যেমন গত এক সপ্তাহে গোয়াতে ১৯ মেট্রিকটন, তামিলনাড়ুতে ৭২ মেট্রিকটন এবং কর্ণাটকে ৩৬ মেট্রিকটন অক্সিজেন সরবরাহ করেছে।

কেরালা রাজ্যের বর্তমান মেডিক্যাল অক্সিজেন চাহিদা দৈনিক ৭৪.২৫ মেট্রিক টন আর উৎপাদন ক্ষমতা দৈনিক ২১৯.২২ মেট্রিকটন। প্রয়োজনে তা আরো বাড়ানো যাবে। করোনা চিকিৎসায় অক্সিজেন যেহেতু ভীষণ জরুরি একটি উপাদান তাই রাজ্য সরকার এই বিষয়ে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি তৈরি করে দিয়েছে যাদের কাজ দৈনিক অক্সিজেন চাহিদার ওপর নজর রাখা এবং সম্ভাব্য সংকট মোকাবিলার জন্য আগাম পদক্ষেপ গ্রহণের পরামর্শ দেওয়া। এই মনিটরিং এর কাজটি কেরালা করছে ২০২০ সালের মার্চ থেকেই। শুধু অক্সিজেনই না, কেরালা রাজ্যে আইসিইউ বা ভেন্টিলেটরেরও কোন সংকট নেই। এর কারণও যথাযথ প্রস্তুতি। গত বছরে করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পরেই কেরালা রাজ্য আইসিইউ ও ভেন্টিলেটরের সংখ্যা দ্বিগুন করেছে। বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে কম পক্ষে ২০ শতাংশ বেড করোনা রোগীর জন্য বরাদ্দ করার আদেশ দিয়েছে। সরকারি এবং বেসরকারি খাত মিলিয়ে কেরালা রাজ্যে আইসিইউ এর সংখ্যা ৯ হাজার ৭৩৫টি যার মধ্যে ৯৯৯টিতে করোনা রোগী ভর্তি।

শুধু সরকারি হাসপাতালেই আইসিইউ এর সংখ্যা ২ হাজার ৬৫০টি যার মাত্র ৫০ শতাংশে রোগী ভর্তি, করোনা ও করোনা ছাড়া অন্য রোগী মিলিয়ে। আর রাজ্যে ভেন্টিলেটরের সংখ্যা সরকারি বেসরকারি মিলিয়ে ৩ হাজার ৭৭৬টি যার মধ্যে ২৭৭টিতে করোনা রোগী ভর্তি। শুধু সরকারি হাসপাতালেই ভেন্টিলেটরের সংখ্যা ২ হাজার ২৫৩টি যার ১৮.২ শতাংশে রোগী আছে। কেরালের ১ম এবং ২য় স্তরের হাসপাতালগুলোতে করোনারোগীর জন্য বেড রয়েছে ১ লক্ষ ৯৯ হাজার ২৫৬টি আর ১৩৬টি বেসরকারি হাসপাতালে বেড রয়েছে ৫ হাজার ৭১৩টি। কেরালা রাজ্য সরকার এই সংখ্যাও আরো বাড়ানোর পরিকল্পনার নিয়ে রেখেছে যদি প্রয়োজন পড়ে তা হলে যেন তা দ্রুত বাস্তবায়ন করা যায়।

জনগণের সরকারের সঙ্গে জনবিরোধী সরকারের পার্থক্য বুঝতে খুব বেশি কিছু দেখার প্রয়োজন হয়না, সংকট মোকাবিলায় কে কতোটা আন্তরিক ও উদ্যোগি সেটাই পরিস্কার পার্থক্য দেখিয়ে দেয় কারা জন বিরোধী আর জনবান্ধব। তথ্যসূত্র: No oxygen crisis in Kerala: CM ২১ এপ্রিল ২০২১। How Kerala is managing its medical oxygen supply, দ্যা নিউজমিনিটস ডট কম, ২১ এপ্রিল ২০২১। How Kerala Managed To Beat The Oxygen Crisis, ইন্ডিয়া ডট কম, ২৩ এপ্রিল ২০২১। ফেসবুক থেকে শাহিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত