প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] পথচলা শুরু করলো বাংলাদেশ ট্যুরিজম রিসার্চ ইনস্টিটিউট বিটিআরআই

সালেহ্ বিপ্লব: [২]পান্থপথে অবস্থিত দেশের প্রথম ও একমাত্র পর্যটন বিষয়ক গবেষণা প্রতিষ্ঠানটির উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা র. আ. ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, এমপি।

[৩] অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ড. মো. মোশাররফ হোসেন এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্মতত্ত্ব  বিভাগের প্রধান, প্রফেসর ড. সুফি মোস্তাফিজুর রহমান।

[৪] বিটিআরআই-এর ফাউন্ডার প্রেসিডেন্ট কাজী রহিম শাহরিয়ারের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে  অতিথি ছিলেন ট্যুর অপারেটরস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (টোয়াব) প্রথম সহ-সভাপতি শিবলুল আজম কোরেশি, বাংলাদেশ ট্যুরিজম এক্সপ্লোরারস এসোসিয়েশনের (বিটিইএ) চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সাগর ও ইন্টারন্যাশনাল কালিনারি ইনস্টিটিউটের (আইসিআই) পরিচালক (ট্রেনিং) জাহাঙ্গির আলম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিটিআরআই-এর নির্বাহী পরিচালক আবু রায়হান সরকার।

[৫] প্রধান অতিথির বক্তব্যে র. আ. ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, এমপি বলেন, পর্যটন শিল্পের মাধ্যমে দেশের কাঙ্ক্ষিত  অর্থনৈতিক উন্নয়ন সম্ভব। আমাদের দেশের তরুণরা এখন পর্যটন শিল্পে উদ্যোক্তা হিসেবে অসামান্য অবদান রেখে চলেছেন। দেশের হোটেল-মোটেল, রিসোর্ট, পার্ক, পিকনিক স্পট, ট্যুর অপারেটর কোম্পানী, ট্রাভেল এজেন্সী ছাড়াও পর্যটনের উপখাতগুলোতে তারা উদ্যোক্তা হিসেবে প্রশংসনীয় ভূমিকা রাখছেন। কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে, বাংলাদেশের পর্যটন শিল্প নিয়ে যেভাবে গবেষণা হওয়া দরকার ছিলো, সেটা হয়নি। অথচ পর্যটন শিল্পের প্রসার, বিকাশ ও উন্নয়নের জন্য গবেষণা অত্যন্ত জরুরী। আশা করি, বাংলাদেশ ট্যুরিজম রিসার্চ ইনস্টিটিউট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাত ধরে এগিয়ে চলা বাংলাদেশের পর্যটন শিল্প নিয়ে গবেষণা, প্রশিক্ষণ ও দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার মাধ্যমে পর্যটন শিল্পের বিকাশ সাধন, উন্নয়ন এবং একটি পর্যটনবান্ধব জাতি গঠনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে সক্ষম হবে।

[৬]বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ড. মো. মোশাররফ হোসেন বলেন, পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে বর্তমান সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ইতিমধ্যেই জাতীয় পর্যটন মহাপরিকল্পনা প্রণয়নের জন্য দেশি-বিদেশি কনসালট্যান্ট নিয়োগ দিয়েছে সরকার। এছাড়াও বিভিন্ন পর্যটন স্পটের উন্নয়নে নানা প্রকল্পবাস্তবায়ন করছে সরকার। জাতীয় পর্যটন মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে পর্যটন শিল্প নিয়ে গবেষণার দ্বার উন্মুক্ত হবে। বেসরকারী পর্যায়ে বাংলাদেশ ট্যুরিজম রিসার্চ ইনস্টিটিউট প্রশংসনীয় ভূমিকা রাখবে বলে আশা করি ।

সর্বাধিক পঠিত