প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] যাত্রীদের যাতায়াতের ব্যবস্থা নিশ্চিত না করেই বাস ও লঞ্চের ভাড়া বাড়ানো হয়েছে, প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বললেন, সংক্রমণ ঠেকাতে বাড়ানো হয়েছে

মিনহাজুল আবেদীন: [২] বৃহস্পতিবার যমুনা টিভির টকশোতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেন, প্রতিদিন হাসপাতালগুলোতে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। বেডের সংখ্যা কমে যাচ্ছে। মানুষের ভেতর এখন সচেতনতা কম। মাস্ক পরছে না, স্বাস্থ্যবিধি মানছে না, অপ্রয়োজনীয় কাজে বাইরে বের হচ্ছে।

[৩] তিনি বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাসে যাতায়াতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। দুই একদিন গেলে মানুষের ভোগান্তি কমে যাবে। মানুষের মৃত্যু ঝুঁকি কমাতে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

[৪] ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির কার্যকরী সভাপতি মো. আবুল কালাম বলেন, করোনা প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা জরুরি। মানুষের সমাগমের জন্য বাসের সামাজিক দূরত্ব ঠেকানো যাচ্ছে না। ঢাকা শহরের বাসগুলোতে অর্ধেকযাত্রী বহনে নিরলসভাবে কাজ করছে।

[৫] যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, বাসের যন্ত্রাংশের দাম কমানো হলে, কম যাত্রী নিয়ে কম ভাড়া করা সম্ভব। যাত্রীদের যাতায়াতের ব্যবস্থা নিশ্চিত না করেই বাস ও লঞ্চের ভাড়া বাড়ানো হয়েছে। বাসের মানুষের সমাগম বেশি, সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না। মটরবাইক বন্ধ করাটাও জনজীবনের জন্য বিপদ হয়ে দাঁড়িয়েছে। মানুষ পায়ে হেঁটে, বাসে দাঁড়িয়ে ঝুলে অফিসে যাচ্ছেন।

[৬] বাংলাদেশ লঞ্চ মালিক সমিতির সভাপতি ও বীর বিক্রম মাহবুব উদ্দিন আহমেদ বলেন, সরকারি নির্ধারিত আইন-কানুন ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রীদের লঞ্চে উঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। সামাজিক দূরত্ব মানতে ছক কেটে দেয়া হয়েছে। একটি যাত্রীর থেকে অন্য যাত্রীর দূরত্ব কতোটুকু থাকবে। কেবিনের যাত্রীদের জন্য দুই সীটের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

[৭] তিনি বলেন, মাস্ক ব্যবহার করছে, অর্ধেক যাত্রী জাহাজে তোলা হচ্ছে। হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। বর্জ ফেলার জন্য ডাস্টবিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বাসের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে ৬০ ভাগ ভাড়া বাড়ানো হয়েছে।

[৮] নগর বিশ্লেষক স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন বলেন, বাসের ভাড়া বাড়ানোর ব্যাপারে কোনও প্রতিষ্ঠান বা যাত্রীদের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করা হয়নি। ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্তে কিছুই জানানো হয়নি।

[৯] তিনি বলেন, ৫০ ভাগ যাত্রী স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাসে উঠছে না। বাধ্য হয়ে বাস মালিকদের যাত্রীদের শতভাগ নিয়েই যেতে হচ্ছে। কেউ নিয়ম-কানুন মানছে না। বাসে ৫০ ভাগ যাত্রী ওঠার কথা বলা হলেও, তার বাস্তবায়ন হচ্ছে না। অথচ যাত্রীদের বাড়তি ভাড়া দিতে হচ্ছে। এ সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলাপ করা উচিত ছিলো। সম্পাদনা: রাশিদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত