প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মেকআপ ছবিতে চলচ্চিত্রশিল্পের ভেতরের গল্পই বলা হয়েছে, জানালেন অনন্য মামুন

ইমরুল শাহেদ: বাংলাদেশ ফিল্ম সেন্সর বোর্ড অনন্য মামুন পরিচালিত মেকআপ ছবিটিকে প্রদর্শন অযোগ্য ঘোষণা করে চিঠি দিয়েছে। কেন প্রদর্শন অযোগ্য এবং কি আছে ছবিটিতে জানতে চাওয়া হয়েছিল সেন্সর বোর্ডের কাছে। কিন্তু সেন্সর বোর্ড থেকে বলা হয়েছে, চিঠিতে যা বলা হয়েছে তার বাইরে তারা কিছু বলতে চান না। তবে সেন্সর বোর্ড সচিব মমিনুল হক বলেছেন, ‘জনসাধারণের মাঝে ছবিটি প্রদর্শনযোগ্য নয় বলে সর্বসম্মতিক্রমে (সেন্সর বোর্ডের সদস্য) সিদ্ধান্ত নিয়েছে সেন্সর বোর্ড।’ চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘এ চলচ্চিত্রে অসম্মানজনক সংলাপের মাধ্যমে চলচ্চিত্রের পরিচালক, প্রযোজক, শিল্পী-কলাকুশলী ও চলচ্চিত্রশিল্পকে নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে।

চলচ্চিত্রটি প্রদর্শিত হলে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্টদের নিয়ে জনসাধারণের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে।’ এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে প্রযোজক পরিচালক অনন্য মামুন বলেছেন, ‘কোনো দৃশ্য নিয়ে সেন্সর বোর্ড আপত্তি করেনি। অভিযোগও করেনি। আপত্তি করেছে কিছু সংলাপ নিয়ে। আমি আপিলে যাব না। ছবিটি রিসেন্সরের জন্য জমা দেব।’ তিনি বলেন, ‘আমি ছবিটিতে দেখিয়েছি মেকআপ-এর সামনের এবং পেছনের কিছু কথা। প্রভাবশালী তারকারা কিভাবে চলচ্চিত্রশিল্পে প্রভাব বিস্তার করে। কিভাবে একজন শিল্পীকে কাস্ট করা হচ্ছে। কিভাবে তারা তাদের ব্যক্তিগত সম্পর্ককে লুকিয়ে রাখছে ইত্যাদি।

একজন মানুষ মেকআপের সামনে এক রকম, মেকআপের পেছনে আরেক রকম। কেন আমি সেটা দেখাতে পারব না। গার্মেন্টসে অবৈধ কিছু হচ্ছে, কিংবা একটা ব্যবসায় অবৈধ কিছু হচ্ছে, সেটা কেন দেখানো যাবে না। চোরকে কেন চোর বলা যাবে না। কোনো সত্যমিথ্যা নিয়েতো বিরুপ প্রতিক্রিয়া হতে পারে না। আমি চলচ্চিত্রশিল্পের ভেতরের গল্প বলেছি, বাইরের গল্প নয়। তারা যা বলছে সেটা কোনো যুক্তির মধ্যেই পড়ে না। আমি দরকার হলে এসব নিয়ে প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত যাব। আমার কথাগুলো উনাকে জানাব। একজন নারী ধর্ষিতা হলে, স্বাধীনতাকে হত্যা করা হয়, আমি চলচ্চিত্রে এ কথা কেন বলতে পারব না।

আমার ছবিতে ১৩ জন নারীকে সম্মান দেখিয়েছি, সেটা ফেলে দিতে হবে - কেন? নারী মা, নারী সন্তান, নারী সম্মান - এগুলো ছবি থেকে ফেলে দিতে হবে কেন?’ তিনি বলেছেন, আপিল করার সুযোগ থাকলেও তিনি তা না করে নতুনভাবে ছবিটি সেন্সরের জন্য জমা দেবেন। এর মানে হলো তিনি নতুনভাবে আবার ছবিটি সম্পাদনা করবেন। এর আগে ওটিটি প্লাটফর্মে মুক্তি পাওয়া ‘নবাব এলএলবি’ চলচ্চিত্রের সংলাপে পুলিশকে হেয় করার অভিযোগে গ্রেপ্তার হন ছবির পরিচালক অনন্য মামুন ও অভিনেতা শাহীন মৃধা। বর্তমানে তারা জামিনে আছেন। সিনেমা হলে মুক্তির দেওয়ার জন্য ‘নবাব এলএলবি’ সেন্সর বোর্ডে জমা দিলে ছবির ১১টি দৃশ্যে আপত্তির কথা জানিয়েছে সেন্সর বোর্ড। দৃশ্যগুলো বাদ দিয়ে ছবিটি সেন্সর বোর্ডে পুনরায় জমা দেওয়ার জন্য প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

সর্বাধিক পঠিত