প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শরিফুল হাসান: স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও কেন শিক্ষার্থীদের গাদাগাদি করে থাকতে হয়?

শরিফুল হাসান: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের পর এবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলেরাও তালা ভেঙ্গে হলে প্রবেশ করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর প্রশাসন ও নীতিনির্ধারকদের বলবো, আর দেরি না করে হলগুলো খুলে দিন।

অবাক কাণ্ড হলো হল না খোলার কারণ হিসেবে বলা হয়, হলে গাদাগাদি করে থাকলে করোনা ছড়াবে। আচ্ছা স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও কেন শিক্ষার্থীদের গাদাগাদি করে থাকতে হয়? ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীদের থাকার জন্য শত কোটি টাকা দিয়ে বহুতল ভবন করা হয়।

আমার প্রশ্ন আগে হল দরকার নাকি শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ভবন? শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তো নিজের টাকায় বাসা ভাড়া করার ক্ষমতা আছে, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ ছেলেমেয়েদের তা নেই। তাহলে কেন আগে হল করা হয় না? আচ্ছা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের কতো টাকা ছেলেমেয়েদের পেছনে ব্যয় হয়? এসব প্রশ্নের উত্তর জরুরি।

তবে এই মুহুর্তে জরুরী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খোলা। কারণ বছরখানেক ধরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ। এবার বিশ্ববিদ্যালয় দিয়েই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেয়া শুরু হোক। জয় হোক তারুণ্যের। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত