প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] অস্ট্রেলিয়ার কাছে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দাবি করে আইসিসির কাছে দক্ষিণ আফ্রিকার অভিযোগ

এল আর বাদল: [২] কোভিড ১৯ এর কারণ দেখিয়ে মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকা সফর অনির্দিষ্টকালীন সময়ের জন্য স্থগিত করে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। গত সপ্তাহে এ বিষয়ে নিজেদের অসন্তোষের কথা জানিয়ে আইসিসি ও সিএ’র কাছে চিঠি পাঠিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড (সিএসএ)। যেখানে সিএসএ’র ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী ফোলেতসি মোসেকি আইসিসির কাছে মূলত টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ও এফটিপির সূচিভঙ্গের অভিযোগের পাশাপাশি আর্থিক ক্ষতির প্রসঙ্গ উল্লেখ করেছেন।

[৩] তবে আর্থিক ক্ষতির অঙ্কটা উল্লেখ করেননি সিএসএ’র প্রধান নির্বাহী। ক্রিকেটের ওয়েবসাইট ক্রিকফ্রেঞ্জি সাউথ আফ্রিকা বোর্ডের অসমর্থিত সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, অস্ট্রেলিয়া সফর বাতিল করায় দক্ষিণ আফ্রিকা টিভি রাইটস, টাইটেল স্পন্সরসহ বিভিন্ন ইভেন্টে কমপক্ষে ১১০ মিলিয়ন ইউএস ডলার ক্ষতি হয়েছে।

[৪] অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের বিরুদ্ধে আইসিসির কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে অভিযোগ দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড (সিএসএ) জানালেও আইসিসি কর্তারা এখনো কোনো আলোচনায় বসেনি। বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে এখন পর্যন্ত ১১ ম্যাচ খেলে ১৪৪ পয়েন্ট পেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। ঘরের মাঠে সিরিজ থেকে তাদের প্রত্যাশা ছিল আরও বেশি। কিন্তু সেটি স্থগিত করায় এখন পয়েন্টেরও দাবি করছে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড।

[৫] গত বছরের (২০২০) ডিসেম্বরে কোভিড মাহামারীর কারণে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে এক দিনের সিরিজও বাতিল করেছিলো ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। পরবর্তীতে টেস্ট সিরিজও দুই বোর্ড মিলে বাতিলের স্দ্ধিান্ত নেয়। একক সিদ্ধান্তে অস্ট্রেলিয়া ওয়ানডে সিরিজ বাতিল করলেও ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড তা নিয়ে দ্বিমত পোষণ করেনি। এ ব্যাপারে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক আগেই ঝাঁঝালো মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেছেন ক্রিকেট বিশ্বকে মূলত পারিচালিত করে থাকে তিন মোড়ল ভারত, ইংল্যান্ড আর অস্ট্রেলিয়া।
যে কারণে অস্ট্রেলিয়া ইংল্যান্ড সফর বাতিল করলেও নিশ্চুপ থেকেছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। তিন মোড়লই সব সময় নিজেদের মধ্যে দ্বিপাক্ষীক সিরিজ খেলে থাকে। অন্য কোনো দেশের বিরুদ্ধে এরা খেলতে খুব একটা আগ্রহ দেখায় না। এ ব্যাপাওে আইসিসিকেও অবহিত করা হয়েছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত