প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রভাষ আমিন: টিকার ভুল উৎসবের দায় গণমাধ্যমেরও আছে

প্রভাষ আমিন : টিকার ভুল উৎসবের দায় গণমাধ্যমেরও আছে। ভালো ছবি পাওয়ার জন্য আমরা প্রয়োজনে কবরেও নেমে যাই। গণটিকা কার্যক্রমের প্রথম দিনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী টিকা নিচ্ছেন, এটা অবশ্যই শীর্ষ সংবাদ। টেলিভিশনে সবার আগে এই ছবি প্রচার হবে।

পত্রিকায়ও পরদিন এই ছবিই ছাপা হয়েছে। এখন ভাবুন, বাংলাদেশের ২৬টি টিভি চ্যানেল, গোটা পঞ্চাশেক পত্রিকা, অনলাইন, রেডিওর রিপোর্টার-ক্যামেরাম্যানরা কোনো গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টে গেলে সেখানে তো এমনিতে কয়েকশ লোক জমায়েত হবে। সঙ্গে আয়োজক, দর্শনার্থীরা তো থাকবেই। আর একটু ভালো ছবি, ভালো ফ্রেম পাওয়ার জন্য আমাদের ক্যামেরাপারসনরা যা করেন, পরে দেখলে তারা নিজেরাও লজ্জা পাবেন। অধিকাংশ অনুষ্ঠানেই দর্শকসারিতে বসা লোকজন মঞ্চের অতিথিদের দেখতে পান না। তাদের চোখের সামনে থাকে ক্যামেরাম্যানদের সারি সারি পশ্চাৎদেশ। আমি ক্যামেরাম্যানদের একদম দোষ দিই না। ভালো ছবি না পেলে অফিসে গেলে তাকে বকা শুনতে হবে। আমাদের দেশে অনুষ্ঠান আয়োজকদের মাথায় মিডিয়া ব্যবস্থাপনার বিষয়টি থাকেই না। অথচ দেখুন, ২৭ জানুয়ারি যেদিন প্রধানমন্ত্রী ভার্চ্যুয়ালি টিকা দেয়ার কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন, সেদিন কিন্তু কোনো বিশৃঙ্খলা ছিল না।

কারণ সেদিন অনুষ্ঠানস্থলে বিটিভি ছাড়া আর কোনো ক্যামেরা ঢুকতে দেওয়া হয়নি। আমরা দেখেছি সেদিন যিনি টিকা নিচ্ছেন এবং যিনি দিচ্ছেন; এ দুজন ছাড়া ফ্রেমে আর কেউ ছিলেন না। ২৭ জানুয়ারি যেটা সম্ভব, ৭ ফেব্রুয়ারিতে সেটা সম্ভব নয় কেন? আমি বলছি না, বড় ইভেন্টে সাংবাদিকদের ঢুকতে না দেয়া হোক। আমি চাই শৃঙ্খলা থাকুক। বড় ও গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টে মিডিয়ার জন্য নির্ধারিত জায়গা থাকুক। ক্যামেরাম্যানরা কোথায় দাঁড়াবেন, তা ঠিক করে দেয়া হোক। তা হলেই বিশৃঙ্খলা এড়ানো সম্ভব। আর আমাদের ভিআইপিরাও যেন চারপাশ থেকে অতি উৎসাহীদের দূরে রাখেন।

প্রথম দিনেই টিকা নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী উদাহরণ সৃষ্টি করেছেন। যাদের মনে টিকা নিয়ে দ্বিধা, সংশয়, ভয় ছিল; তারা স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে দেখে সাহস পাবেন। কিন্তু স্বাস্থ্যমন্ত্রী হয়তো ভুলে গেছেন, এটা বিসিজি টিকা নয়; এটা করোনা টিকা। আর করোনায় কিছু স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হয় সবাইকেই। এমনকি টিকা দেয়ার পরও স্বাস্থ্যবিধি ভুলে যাওয়ার সুযোগ নেই। করোনাকে হারাতে হলে টিকা এবং স্বাস্থ্যবিধি দুটোই লাগবে। কিন্তু স্বাস্থ্যমন্ত্রীর টিকা নেয়া দেখে যে কেউ মনে করতে পারেন, টিকা নেয়ার পর আর সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার দরকার নেই। কিন্তু এটা সমাজে মারাত্মক ভুল বার্তা ছড়াবে। তাই আমাদের মন্ত্রী, নেতা, ভিআইপি সবার উচিত এমন কাজ করা, যাতে সবাই উদ্বুদ্ধ হবেন; ভুল বুঝবেন না।

একটা বার্তা পরিষ্কার, টিকা নিতে কোনো ভয় নেই। তাই আপনারা যারা টিকা নেয়ার যোগ্য, তারা দ্রুত নিবন্ধন করুন এবং টিকা নিন। এখনো ভিড় একটু কম। আস্তে আস্তে ভিড় বাড়বে, তখন কিন্তু আপনার অপেক্ষার প্রহর দীর্ঘ হবে। লেখক : হেড অব নিউজ, এটিএননিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত