প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আউটসোর্সিংয়ের আয়ও আসবে বিকাশ-রকেটে

ডেস্ক রিপোর্ট : মোবাইলের মাধ্যমে আইটি খাতের সেবা আয় বৈদেশিক মুদ্রায় দেশে আনা যাবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের লাইসেন্সপ্রাপ্ত মোবাইল সার্ভিস প্রতিষ্ঠান বিকাশ, রকেট এবং এ জাতীয় প্রতিষ্ঠানের ডিজিটাল ওয়ালেটের মাধ্যমে বৈদেশিক আয় প্রত্যাবাসন এবং তা আইটি খাতের রফতানিকারকদের ওয়ালেট হিসাবের মাধ্যমে করা যাবে।

প্রচলিত ব্যবস্থায় শুধু ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে এ জাতীয় আয় প্রত্যাবাসন করার সুযোগ ছিল। এ বিষয়ে গতকাল একটি নীতিমালা জারি করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বাংলাদেশ ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, আইটি খাতের ছোট ছোট সেবা আয় আগে ব্যাংকের মাধ্যমে আনা হতো। এতে অনেক সময় নানা জটিলতা দেখা দেয়। ছোট ছোট আয় অনেক সময় সেবা গ্রহণকারী বিদেশী প্রতিষ্ঠান ব্যাংকিং চ্যানেলে অর্থ পাঠাতে অনাগ্রহ হতো। কিছু কিছু ক্ষেত্রে এ ধরনের আয় নানা অবৈধ উপায়ে আসতো। আইটি খাতের ছোট ছোট সেবা আয় বৈধ পথে দেশে আনার জন্যই মোবাইলের মাধ্যমে সেবা আয় দেশে আনার সুযোগ দেয়া হয়েছে।

গতকাল কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে এ বিষয়ে জারি করা সার্কুলারে বলা হয়েছে, মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রোভাইডারদেরকে আইটি খাতের সেবা আয় দেশে আনার জন্য কিছু শর্ত পরিপালন করতে হবে। মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রোভাইডারদেরকে বিদেশী পেমেন্ট সার্ভিস প্রোভাইডারদের সাথে চুক্তিবদ্ধ হতে হবে। অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সার্ভিস প্রোভাইডার, ডিজিটাল ওয়ালেট প্রোভাইডার কিংবা এগ্রিগেটররা বিদেশী পেমেন্ট সার্ভিস প্রোভাইডার হিসেবে কাজ করতে পারবে। মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রোভাইডাররা অনুমোদিত ডিলার ব্যাংকে সেটেলমেন্ট অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করবে।

বিদেশী পেমেন্ট সার্ভিস প্রোভাইডারদের মাধ্যমে প্রাপ্ত বৈদেশিক মুদ্রা নস্ট্রো হিসাবে জমা হওয়ার পর তা অনুমোদিত ডিলার ব্যাংক মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রোভাইডারদের সেটেলমেন্ট হিসেবে টাকায় স্থানান্তর করবে। সেটেলমেন্ট অ্যাকাউন্টে জমাকৃত আইটি সেবা খাতের আয় সংশ্লিষ্ট রফতানিকারকের নামে পরিচালিত ডিজিটাল ওয়ালেটে জমা হবে। বিদেশী পেমেন্ট সার্ভিস প্রোভাইডাররা এ দেশে অনুমোদিত ডিলার ব্যাংক বৈদেশিক মুদ্রা কিংবা টাকা হিসাব পরিচালনা করতে পারবে। বিদেশী পেমেন্ট সার্ভিস প্রোভাইডারদের নামে পরিচালিত হিসেবে অনুমোদিত ডিলার ব্যাংক ওভারড্রাফ্ট সুবিধা প্রদান করতে পারবে।

তবে ওভারড্রাফট সুবিধা প্রদানের ক্ষেত্রে পেমেন্ট গ্যারান্টি থাকতে হবে বলে সার্কুলারে উল্লেখ করা হয়েছে। রফতানিকারকরা বৈদেশিক মুদ্রায় রিটেনশন কোটা সুবিধা পেয়ে থাকে। আলোচ্য সুবিধা এ ক্ষেত্রেও থাকবে। মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রোভাইডারদের সেটেলমেন্ট অ্যাকাউন্টে অর্থ জমা করার আগে বৈদেশিক মুদ্রার প্রয়োজনীয় অংশ রিটেনশন কোটা হিসেবে জমা করা যাবে বলে সার্কুলারে বলা হয়েছে।

একই দিন অপর একটি সার্কুলারে বিদেশ থেকে আগত যাত্রীদেরকে ডিজিটাল ওয়ালেটের মাধ্যমে নিয়ে আসা বৈদেশিক মুদ্রায় লেনদেন সুবিধা প্রদান করা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে অনুমোদিত ডিলার ব্যাংক বিদেশী ডিজিটাল ওয়ালেটের সাথে চুক্তিবদ্ধ হতে পারবে মর্মে সার্কুলারে জানানো হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, আলোচ্য নীতিমালার আওতায় আইটি খাতের আয় সহজে প্রত্যাবাসিত হতে পারবে। এ ক্ষেত্রে স্থানীয় ডিজিটাল ওয়ালেটগুলোকে বিদেশী প্রতিসঙ্গীদের সাথে প্রয়োজনীয় আয়োজন করার জন্য অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা বলেন, ২০১১ অনুমোদিত ডিলার ব্যাংকগুলোকে বিদেশী অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সার্ভিস প্রোভাইডারদের সাথে স্থায়ী সমঝোতার ভিত্তিতে সেবা খাতের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র আয় প্রত্যাবাসনের নীতিমালা বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে জারি করা হয়। আইটি খাতের লেনদেনের সংখ্যা বিবেচনায় বিশেষ করে ফ্রিল্যান্সারদের আয় সহজে নিয়ে আসার লক্ষ্যে মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রোভাইডারদেরকে প্রত্যাবাসন কার্যক্রমে অংশ করা হয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত