প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাহবুবুর রহমান: ধর্মীয় উগ্রবাদকে প্রশ্রয় দিয়ে আল-জাজিরা টিভি বাংলাদেশ সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করছে

মাহবুবুর রহমান: বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ ও এর পক্ষের শক্তির বিরুদ্ধে প্রোপাগান্ডা চালানো কাতার ভিত্তিক একটি টিভি চ্যানেল আল-জাজিরা।

এই চ্যানেলটি ইসলামের নামে ধর্মীয় উগ্রবাদ ও সাম্প্রদায়ীকতায় বিশ্বাসী ( বাংলাদেশের জামাত ইসলাম,হেফাজতে ইসলাম এবং বিএনপি) এবং আরব জাতীয়তাবাদীদের একটি প্ল্যাটফরর্মে পরিণত হয়েছে।

আল-জাজিরা টিভি চ্যানেলটি সাংবাদিকতার নীতি নৈতিকতাকে অগ্রাহ্য করে ধর্মীয় উগ্রবাদকে প্রশ্রয় দিয়ে সেই দৃষ্টিভঙ্গি প্রচারের চেষ্ঠা করে যাচ্ছেন।

দীর্ঘদিন যাবৎ বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের বিরুদ্ধে আল-জাজিরা টিভি মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সংবাদ পরিবেশন করে আসছেন।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে অবস্থানকারী দল জামাতে ইসলামের পক্ষ নিয়ে আল-জাজিরা টিভি যুদ্ধপরাধীদের বিচার শুরু থেকেই বিদ্যেষমূলক ভাবে যুদ্ধপরাধীদের পক্ষে সংবাদ পরিবেশন করে যাচ্ছে।

এই টিভি চ্যানেলটির সাথে যুক্ত হয়েছিল বাংলাদেশের দিগন্ত টিভি, আমার দেশ প্রত্রিকা।

রাজধানীর শাপলা চত্ত্বরে হেফাজত ইসলামের মিটিংয়ে বাংলাদেশের বিজিবি ও পুলিশ বাহিনী দ্বারা হাজার হাজার নিরিহ মানুষকে হত্যা করা হয়েছে বলে সংবাদ পরিবেশন করেছিল আল-জাজিরা টিভি।যা পরে সস্পুন্ন ভুল ও মিথ্যা সংবাদ বলে প্রমানীত হয়।

আলজাজিরা বাংলাদেশে মুলত ধর্মীয় উগ্রবাদের মুখপাত্র হয়ে কাজ করছে। এর পৃষ্ঠপোষক কারা তা এখন স্পষ্ট। কারন যখন কোন মিডিয়া অন্ধ ভাবে এক পক্ষের কথা বলে তখন তা সবার কাছে স্পষ্ট হয়ে যায়। দেশে ধর্মীয় উগ্র সাম্প্রদায়ীক গোষ্ঠীদের নিয়ে আলজাজিরার প্রতিবেদন কোথায়?

সাতক্ষীরা,সাতকানীয়া সহ দেশের কয়েকটি স্থানকে বাংলাদেশ থেকে বিচ্ছিন্ন করে মিনি পাকিস্তানে রুপান্তরিত করে রিপোর্টিং করেছিল এই টিভি চ্যানেলটি।

ড.কামাল হোসেনের জামাতা ব্রিটিশ নাগরিক ডেভিড বার্গম্যান বাংলাদেশে বিভিন্ন ইংরেজী প্রত্রিকায় চাকুরী করার সময় বাংলাদেশের বিগত দিনের জামাত-বিএনপি সরকারের সাথে ঘনিষ্ঠতা লাভ করে।জামাত-বিএনপি মিশন বাস্তবায়ণ করার জন্য ডেভিড বার্গম্যানকে নিয়োগ দান করেন জামাত ও বিত্রনপি।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে ৩০লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলার স্বাধীনতা একটি অবেগের জায়গা ।সেই শহীদের সংখ্যা নিয়ে বিকৃত সংখ্যা ৩/৫ লক্ষ প্রশ্ন তুলে আল-জাজিরা টিভি ও ডেভিড বার্গম্যানের ব্লগ ও বইতে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃত করা হয়েছে।

এখানে বলে রাখা দরকার,ডেভিড বার্গম্যান নিজেকে একজন মানবাধিকার কর্মী বলে দাবী করেন কিন্তু একজন মানবাধিকার কর্মী যুদ্ধপরাধী ও মানবতার শ্রত্রুদের পক্ষে আন্তজার্তিক জনমত গড়ে তোলার জন্য কিভাবে ওকালতি বা ভাড়াটিয়া দালাল হিসাবে নিয়োজিত বিএনপির তারেক জিয়ার পেইড-এজেন্ট হিসাবে কাজ করতে পারেন।

২০১১সালে সাভারের ইট ভাটায় শিশু,নারীসহ শেকল বন্ধী অবস্থায় ৩০জনকে উদ্ধার করা হয়েছিল।
কিন্তু আল-জাজিরা টিভি দুই মাস পরে এই প্রতিবেদনটি নতুন করে নতুন রুপে বাংলাদেশের শিশু শ্রম এবং অসহায় দারিদ্রকে তুলে ধরা হয়। যা বিশ্বজুডে বিশেষত উন্নত বিশ্বের দর্শকদের মনোযোগ আকর্ষণ করে। মূল উদ্দেশ্য ছিল বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার হীন প্রচেষ্টা,যাতে করে বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ ভয় পায়।

আওয়ামীলীগ সরকার থাকাকালীন সময়ে আল-জাজিরা টিভি বাংলাদেশকে নেগেটিভ ভাবে পৃথিবীর সামনে উপস্হাপন করে। সর্বশেষ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আর্মিকে নিয়ে সস্পূন্ন ভিত্তিহীন ও পরিকল্পিত ভাবে বাংলাদেশ থেকে বিতাড়িত কিছু কুলাঙ্গারদের সাথে নিয়ে আল-জাজিরা টিভি “আল্ দ্যা প্রাইম মিনিস্টার ম্যান” নামক ইনভেস্টিগেশন নেগেটিভ রিপটিং করেছেন যা অত্যান্ত নিন্দনীয়।

শেষে বলতে চাই আল-জাজিরা টিভি চ্যানেলটি প্রকৃত পক্ষে সন্ত্রাসবাদ প্রসারে ভূমিকা রাখছে।
চ্যানেলিটি বন্ধের জন্য কাতারের প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলি কাতারের উপর চাপ দিয়ে যাচ্ছে ।

কারন অনেক ক্ষেত্রে সিরিয়ার আল-কয়েদা সমর্থিত সংগঠনের ইতিবাচক ভাবে সংবাদ প্রচার পেয়েছে আল-জাজিরা টিভি চ্যানেলটিতে ।

মাহবুবুর রহমান: সাধারণ সম্পাদক, ডেনমার্ক আওয়ামী লীগ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত