প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

লকডাউনে ছুঁতে‌ই অনীহা! স্বামীর পুরুষত্ব নিয়েই প্রশ্ন তুলে মোটা টাকার দাবি স্ত্রীর

ডেস্ক রিপোর্ট : বিয়ে করেছিলেন তাঁরা জুন মাসে, লকডাউনের মধ্যেই। কিন্তু বাসর রাত থেকেই স্বামীর দূরে দূরে থাকার বিষয়টি কিছুতেই মেনে নিতে পারছিলেন না স্ত্রী। সমস্যার কারণ বুঝতে না পেরে ২ ডিসেম্বর অভিযোগ দায়ের করেন ওই মহিলা। প্রশ্ন তোলেন স্বামীর পুরুষত্ব নিয়ে। সন্দেহ বাড়ায় অগত্যা স্ত্রী’কে ভুল প্রমাণ করতে মেডিক্যাল টেস্টের সিদ্ধান্ত নেন ওই ব্যক্তি। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপালে।

করোনা কালে সকলেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখছে। কিন্তু স্বামী-স্ত্রী’র মধ্যেও দূরত্ব থাকবে, একে অপরের সংস্পর্শে আসবে না এই ঘটনা বিরল। এই বছর মেয়ের মাসে লকডাউন শুরু হয়। তার কিছু দিনের মধ্যেই এই দম্পতির বিয়ে হয়। কিন্তু করোনা সংক্রমণের ভয়ে স্ত্রী’র সঙ্গে প্রায় সব রকমের যোগাযোগ বন্ধ করে দেন তিনি। এমনকি কথা বলার সময়েও দূরত্ব বজায় রাখছিলেন। এটা খুব ভালো ভাবে নেননি ওই নববধূ।

অনেক দিন ধরে এই ঘটনাটি চলার পর রেগে গিয়ে ওই মহিলা বাড়ি ছেড়ে চলে যান। তার পর বাবা-মা’র সঙ্গে এসে থাকতে শুরু করেন। ঘটনার জল এত দূর গড়ায় যে ওই মহিলা তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষের কাছে সাহায্য চেয়ে বলেন তাঁর স্বামী যৌনমিলনে অক্ষম। তাই ভবিষ্যতের জন্য খোরপোষের দাবি করেন।

ওই ব্যক্তিকে কর্তৃপক্ষ ডেকে পাঠান। ব্যাপারটি হাতের নাগাল থেকে বেরিয়ে যাচ্ছে দেখে ব্যক্তি অবশেষে মেডিক্যাল টেস্ট করানোর সিদ্ধান্ত নেন। স্ত্রী’কে তিনি প্রমাণ দেন যে, তাঁর যৌন-মিলন করতে কোনও সমস্যা নেই। শুক্রবার টেস্টের ইতিবাচক রিপোর্ট আসায় অবশেষে স্ত্রী’কে বাড়ি ফেরাতে সক্ষম হন তিনি।

ব্যক্তি পরে আইনের কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছিলেন, তাঁদের পরিবারের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে তিনি দূরে দূরে থাকছিলেন। কারণ বিয়ের পর তাঁর স্ত্রী’র পরিবারের অনেকেই করোনা পজিটিভ এসেছিল।
সূত্র-নিউজ১৮

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত